প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/১৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰই জিজ্ঞাসা করিলাম, কি হতে পারে তা হ’লে ? এমনি ক’রে ঘুরে ঘুরে বেড়ানো ? পিয়ারী তাহার জবাব না দিয়া বলিল, তা ছাড়া কিসের জন্যে বৰ্ম্মায় যেতে চাচ্চ শুনি ? চাকরি করতে, ঘুরে বেড়াতে নয়। আমার কথা শুনিয়া পিয়ারী উত্তেজনায় সোজা হইয়া উঠিয়া বসিয়া বলিল, দেখ, অপরকে যা বল, তা বল ; কিন্তু আমাকে ঠকিও না। আমাকে ঠকালে তোমার ইহকালও নেই, পরকালও নেই—তা জানো ? সেটা বিলক্ষণ জানি ; এবং কি করতে বল তুমি ? আমার স্বীকারোক্তিতে পিয়ারী খুশী হইল ; হাসিমুখে বলিল, মেয়েমানুষে চিরকাল যা বলে থাকে, আমিও তাই বলি। একটা বিয়ে ক’রে সংসারী হও–সংসার-ধৰ্ম্ম প্রতিপালন কর । প্রশ্ন করিলাম, সত্যি, খুশী হবে তাতে ? সে মাথা নাড়িয়া কানের দুল জুলাইয়া সোৎসাহে কহিল, নিশ্চয়! একশ’বার । এতে আমি সুখী হব না ত সংসারে কে হবে শুনি ? বলিলাম, তা জানি নে, কিন্তু এ আমার একটা দুর্ভাবনা গেল ! বাস্তবিক এই সংবাদ দেবার জন্তেই আমি এসেছিলাম যে বিয়ে না ক’রে আমার আর উপায় নেই। পিয়ারী আর একবার তাহার কানের স্বর্ণভিরণ দুলাইয়া মহা আনন্দে বলিয়া উঠিল, আমি ত তা হ’লে কালীঘাটে গিয়ে পুজো দিয়ে আসব। কিন্তু মেয়ে আমি দেখে পছন্দ করব, তা বলে দিচ্চি । আমি বলিলাম, তার আর সময় নেই—পাত্রী স্থির হয়ে গেছে। আমার গম্ভীর কণ্ঠস্বর বোধ করি পিয়ার লক্ষ্য করিল। সহসা তাহার হাসিমুখে একটা স্নান ছায়া পড়িল, কহিল, বেশ ত, ভালই ত! স্থির হয়ে গেলে ত পরম মুখের কথা । বলিলাম, মুখ-দুঃখ জানি নে রাজলক্ষ্মী ; যা স্থির হয়ে গেছে, তাই তোমাকে জানাচ্চি । পিয়ারী হঠাৎ রাগিয়া উঠিয়া বলিল, যাও চালাকি করতে হবে না-সব মিছে কথা । একটা কথাও মিথ্যে নয় ; চিঠি দেখলেই বুঝতে পারবে। বলিয়া জামার পকেট হইতে দুখানা পত্রই বাহির করিলাম। কৈ দেখি চিঠি, বলিয়া হাত বাড়াইয়া পিয়ারী চিঠি দুখান হাতে লইতেই, H R