প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/২৩৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ অর্থ দেখিতে পাইল। আর তাহার লেশমাত্র সংশয় রছিল না, জ্যাঠাইমা সত্যই বিদায় লইতেছেন। এ যে কি, তাহার অবিদ্যমানতা যে কি অভাব, মনে করিতেই তাহার দুই চক্ষু অশ্রপূর্ণ হইয়া উঠিল। আর মুহূৰ্ত্ত বিলম্ব না করিয়া সে এ-বাটতে আসিয়া উপস্থিত হইল। বেলা তখন নটা-দশটা। ঘরে ঢুকিতে গিয দাসী জানাইল তিনি মুখুয্যে-বাড়ি গেছেন। রমেশ আশ্চৰ্য্য হইয়া প্রশ্ন করিল, এমন সময় যে ? এ দাসীটি বহুদিনের পুরানো । সে মুগ্ধ হাসিয়া কহিল, মার আবার সময়-অসময় । তা ছাড়া, আজ তাদের ছোটবাবুব পৈতে কিনা ৷ যতীনের উপনয়ন ? রমেশ আরও আশ্চৰ্য্য হইয়া কহিল, কৈ এ কথা ত কেউ জানে না ? দাসী কহিল, র্তারা কাউকে বলেননি। বললেও ত কেউ গিয়ে থাবে না— রমাদিদিকে কৰ্ত্তারা সব একঘরে করে রেখেচেন কিনা ৷ রমেশের বিশ্বয়ের অবধি রহিল না। সে একটুখানি চুপ করিয়া থাকিয়া কারণ জিজ্ঞাসা করিতেই দাসী সলজে ঘাডটা ফিরাইয়া বলিল, কি জানি ছোটবাবুরমাদিদির কি সব বিত্র অখ্যাতি বেরিয়েচে কি ন!—আমরা গরীব-দুঃখী মানুষ, সে সব জানিনে ছোটবাবু-বলিতে বলিতে সে সরিয়া পড়িল । কিছুক্ষণ চুপ করিয়া থাকিয়া রমেশ গুহে ফিরিয়া আসিল । এ যে বেণীর ক্রুদ্ধ প্রতিশোধ তাহা জিজ্ঞাসা না করিয়াও সে বুঝিল। কিন্তু ক্রোধ কি জন্য এবং কিসের প্রতিহিংসা কামনা করিয়া সে কোন বিশেষ কদর্ঘ্য ধারায় রমর অখ্যাতিকে প্রবাহিত করিয়া দিয়াছে, এ সকল ঠিকমত অনুমান করাও তাঁহার দ্বারা সম্ভবপর ছিল না ! ఫె সেইদিন অপরাত্ত্বে একটা অচিন্তনীয় ঘটনা ঘটিল। আদালতের বিচার উপেক্ষ করিয়া কৈলাস নাপিত এবং লেখ মতিলাল সাক্ষীসাবুদ্ধ সঙ্গে লইয়া রমেশের শরণাপন্ন হইল । রমেশ অকৃত্রিম বিস্ময়ের সহিত প্রশ্ন করিল, আমার বিচার তোমরা মানবে কেন বাপু ? বাদী-প্রতিবাদী উভয়েই জবাব দিল, মানব না কেন বাবু, হাকিমের চেয়ে আপনার বিস্তাবুদ্ধিই কোন কম । আর হাকিম হজুর যা কিছু তা আপনার পাঁচজন জদ্রলোকেই ত হয়ে থাকেন । কাল যদি আপনি সরকারী চাকরি নিয়ে হাকিম ఇదిa