পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/২৫২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


लग्रे९-नॉश्छिा-नर6यश् ৬বে দেরি করিসূনে, যা ঠাকুরের কাছে, তোর দাদার জন্যে বেশ ক'রে ধর চেয়ে নিস্ । পুটি ছুটি৷ চলিয়া গেল । নীলাম্বল হাসিয়া বলিল, সে ও পারবে, বরং তোমার চেয়ে ওই ভাল পারবে । বিরাজ হাসমুখে ঘাড় নাড়িল । বলিল, তা মনে ক’রো না। ভাই বল আর বাপমাই বল, মেয়েমানুষের স্বামীর বড় আর কেউ নয়। ভাই বাপ-মা গেলে দুঃখ-কষ্ট খুবই হয়, কিন্তু স্বামী গেলে যে সৰ্ব্বস্ব যায়। এই যে পাঁচদিন না খেয়ে আছি, তা দুর্ভাবনার চাপে একবার মনে হয়নি যে, উপোস ক’রে আছি—কিন্তু কৈ, ডাক ত তোমার কোন বোনকে দেখি কেমন— নীলাম্বর তাড়াতাড়ি বাধা দিয়া বলিল, আবার । বিরাজ বলিল, তবে বল কেন ? পাগলামি করেচি কি-—কি করেচি সে আমি জানি, আর যে দেবতা আমার মুখ রেখেচেন, তিনিই জানেন। আমি তা হ’লে একটি দিনও বাচতুম না, সিথের এ সিন্ধুর তোলবার আগে সিথে পাথর দিয়ে ছেচে ফেলতুম । শুভযাত্রা ক’রে লোকে মুখ দেখবে না, শুভকৰ্ম্মে লোক ডেকে জিজ্ঞেস করবে না, এ দুটো শুধু হাত লোকের কাছে বের করতে পারব না, লজ্জায় এ মাথার আঁচল সরাতে পারব না, ছ-ছি, সে বঁাচ কি আবার একটা বাচা ? সেকালে যে পুড়িয়ে মারা ছিল, সে ছিল ঠিক কাজ । পুরুষমহলে তখন মেযেমানুষের দুঃখ-কষ্ট বুঝতে, এখন বোঝে না । নীলাম্বল্প কহিল, যা না, তুই বুঝিয়ে দি গে। বিরাজ বলিল, তা পারি! আর শুধু আমি কেন, তোমাকে পেয়ে যে কেউ তোমাকে হারাবে, সেই বুঝিয়ে দিতে পারবে-আমি একলা নয়। যাক, কি সব বকে যাচ্ছি, বলিয়া হাসিয়া উঠিল। তাব পর ফুকিয়া পডিয়া আব একবাব স্বামীর বুকের উত্তাপ, কপালের উত্তাপ হাত দিয়া অনুভব করিয়া বলিল, গায়ে কোথাও ব্যথা নেই ত ? নীলাম্বর ঘাড় নাড়িয়া বলিল, না । বিবাজ বলিল, তবে আর কোন ভয় নেই। আজ আমার ক্ষিদে পেয়েছে—যাই, এইবার দুটো রাধবার যোগাড় কবি গে—সত্যি বলচি তোমাকে, আজ কেউ যদি আমার একখানা হাত কেটে দেয়, তা হ’লেও বোধ করি বাগ হয় না। যদু চাকর বাহির হইতে ডাকিয় বলিল, মা, কবিরাজমশাইকে এখন ডেকে জানতে হবে কি ? নীলাম্বর কছিল, না না, আর আবগুক নেই। যদু তথাপি গৃহিণীর অনুমতির জন্য দাড়াইয়া রহিল। বিরাজ তাহ দেখিতে পাইয়া বলিল, না, যা ডেকে নিয়ে আয়, একবার ভাল ক’রে দেখে যান। $ $ ls