প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/২৫৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎসাহিত-সংগ্ৰহ নীলাম্বর আদর করিয়া বলিল, লক্ষ্মী দিদি আমার, একটি কাজ করবি ? পুটি মাথা নাড়িয়া বলিল, করব । নীলাম্বয় কণ্ঠস্বর আরও কোমল করিয়া কহিল, আস্তে আস্তে চাদর আর ছাতিটা নিয়ে আয় দেখি । চাদর আর ছাতি ? নীলাম্বর কহিল, হু । হরিমতি চোখ কপালে তুলিয়া বলিল, বাপ, রে! বৌদি ঠিক এই দিকে মুখ ক’রে খেতে বসেছে যে ! নীলাম্বর শেষ চেষ্টা করিয়া বলিল, পারবিনে আনতে ? হরিমতি অধর প্রসারিত করিয়া দুই-তিনবার মাথা নড়িয়া বলিল, না দাদা ; দেখে ফেলবে ; তুমি শোবে চল । বেল। তখন প্রায় দুইটা, বাহিরের প্রচণ্ড রৌদ্রের দিকে চাহিয়া সে শুধু মাথায় পথে বাহির হইবার কথা ভাবিতেও পরিল না, হতাশ হইয়া ছোটবোনের হাত ধরিয়া ঘরে আসিয়া শুইয়া পড়িল। হরিমতি কিছুক্ষণ অনর্গল বকিতে বকিতে এক সময়ে ঘুমাইয়। পড়িল। নীলাম্বর চুপ করিয়া মনে মনে নানারূপ আবৃত্তি করিয়া দেখিতে লাগিল, কথাটা ঠিক কি রকম করিয়া পাড়িতে পারিলে খুব সম্ভব বিরাজের করুণার উদ্রেক করিবে। বেল প্রায় পড়িয়া আসিয়াছিল । বিরাজ ঘরের শীতল মন্থণ সিমেন্টের উপর উপুড় হইয়া পড়িয়া বুকের তলার একটা বালিশ দিয় মগ্ন হইয়া মাম ও মামীকে চারপাতা-জোড়া পত্র লিখিতেছিল। কি করিয়া এ বাড়িতে শুদ্ধমত্র মা শীতলার কৃপায় মরা বঁচিয়াছে, কি করিয়া যে এ-যাত্র। সিথির সি দুর ও হাতের নোয়া বজায় রহিয়া গিয়াছে, লিখিয়া লিখিয়া ক্রমাগত লিখিয়াও সে কাহিনী শেষ হইতেছিল না, এমন সময় খাটের উপর হইতে নীলাম্বর হঠাৎ ডাকিয়া বলিল, একটি কথা রাখবে বিরাজ ? বিরাজ দোয়াতের মধ্যে কলমটা ছাড়িয়া দিয়া মুখ তুলিয়া বলিল, কি কথা ? যদি রাখ ত বলি ! বিরাজ কহিল, রাখবার মত হলেই রাখবো—কি কথা ? নীলাম্বর মুহূৰ্ত্তকাল চিন্তা করিয়া বলিল, বলে লাভ নেই বিরাজ, তুমি কথা আমার রাখতে পারবে না। বিরাজ আর প্রশ্ন করিল না, কলমটা তুলিয়া লইয়া পত্রটা শেষ করিবার জন্য আর একবার ঝুঁকিয়া পড়িল। কিন্তু চিঠিতে মন দিতে পারিল না। ভিতরে ভিতরে কৌতুহলটা তাহার প্রবল হইয়া উঠিল । সে উঠিয়া বসিয়া বলিল, আচ্ছা বল, আমি কথা রাখৰ । ՀՅԵ