প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/২৫৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ বলিয়া প্রদীপটি যথাস্থানে রাখিয়া দিয়া ফিরিয়া আসিয়া পায়ের কাছে বসিয়া পড়িয়। গষ্ঠীর হইয়া বলিল, আচ্ছা শুনি, সংসারে সতী অসতী দুই-ই আছে—অসতী মেয়েমানুষ যখন চোখে দেখিনি—আমার বড় সাধ হয় দেখতে, তারা কি রকম ! ঠিক আমাদের মত, না আর কোন রকম । তারা কি কবে, কি ভাবে, কি খায়, কেমন করে শুয়ে ঘুমোয়—এ-সব আমার দেখতে ইচ্ছে করে । আচ্ছ, তুমি দেখেচ ? নীলাম্বর বলিল, দেখেচি ! দেখেচ ? আচ্ছা এই আমি যেমন বসে কথা কইচি, তারা কি এমনি করে বসে যার তার সঙ্গে কথা কয় ? নীলাম্বর হাসিয়া বলিল, তা বলতে পারিনে-আমি ততটা দেখিনি । বিরাজ ক্ষণকাল নির্নিমেষ চোখে স্বামীর মুখপানে চাহিয়া রহিল। হঠাৎ কি ভাবিয়া সৰ্ব্বাঙ্গে কাটা দিয়া তাহার সর্বশরীর বারংবার শিহরিয়া উঠিল। নীলাম্বর দেখিতে পাইয়া বলিল, ও কি রে ? বিরাজ বলিল, উঃ–কি তারা! দুৰ্গা! দুৰ্গা! সন্ধ্যেবেলা কি কথা উঠে পড়ল —কৈ সন্ধ্যে করলে না ? নীলাম্বর বলিল, এই উঠি । ই যাও, হাত-পা ধুয়ে এস, আমি এই ঘরেই আসন পেতে ঠাই করে দিচ্ছি। দিন পাঁচ-ছয় পরে বাড়ি দশটার সময় নীলাম্বর বিছানায় গুইয়া চোখ বুজিয়া গুড়গুড়ির নল মুখে দিয়া ধূমপান করিতেছিল। বিরাজ সমস্ত কাজকৰ্ম্ম সারিয়া শুইবার পূৰ্ব্বে মেঝেয় বসিয়া নিজের জন্য খুব বড় করিয়া একটা পান সাজিতে সাজিতে বলিয়া উঠিল, আচ্ছা শাস্তরের কথা কি সমস্ত সত্যি ? নীলাম্বর নলটা একপাশে রাখিয়া স্ত্রীর দিকে মুখ ফিরাইয়া বলিল, শাস্ত্রের কথা সত্যি নয় ত কি মিথ্যে ? বিরাজ বলিল, না মিথ্যে বলচিনে, কিন্তু সেকালের মত একালেও কি সব ফলে ? নীলাম্বর মুহূৰ্ত্তকাল চিন্তা করিয়া বলিল, আমি পণ্ডিত নয় বিরাজ, সব কথা জানিনে, কিন্তু আমার মনে হয়, যা সত্যি, তা সেকালে ও সত্যি, একালেও সত্যি। বিরাজ বলিল, আচ্ছা মনে কর সাবিত্রী-সত্যবানের কথা । মরা স্বামীকে যে যমের হাত থেকে ফিরিয়ে এনেছিল, এ কি সত্যি হতে পারে ? নীলাম্বর বলিল, কেন পারে না ? যিনি তার মত সতী, তিনি নিশ্চয়ই পারেন। ত হ’লে আমিও ত পারি ? নীলাম্বর হাসিয়া উঠিল। বলিল, তুই কি তার মত সতী নাকি ? উারা হলেন &দবতা ৷ বিরাজ পানের বাটাটা এক পাশে সরাইয়া রাখিয়া বলিল, হলেনই বা দেবতা !

  • 載。