প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্ত্রীকান্ত আমি কোন কথা না কহিয়া একটা গেলাস চাহিয়া লইয়া প্রস্থান করিলাম। উপরে আসিয়া এ জাত-বোষ্টমীর কথাগুলো মনে করিয়া হাসি চাপিতে পারিলাম না । কিন্তু পরক্ষণেই মনে পড়িল, এ ত একটা সামান্ত অশিক্ষিতা স্ত্রীলোক। কিন্তু পাড়াগায়ে এবং শহরে কি এমন অনেক শিক্ষিত ও অৰ্দ্ধ-শিক্ষিত পুরুষমানুষ নাই, যাহাদের দ্বারা অনুরূপ হাস্যকর ব্যাপার আজও প্রত্যহ অতুষ্ঠিত না হইতেছে! এবং পাপের সমস্ত অন্যায় হইতে যাহারা মুক্কমাত্র খাওয়া-ছোওয়া বঁাচাইয়াই পরিত্রাণ পাইতেছে! তবে এমন হইতে পারে বটে, এদেশে পুরুষের বেলা হাসি আসে না, আসে শুধু স্ত্রীলোকের বেলাতেই। আজ সন্ধ্যা হইতেই আকাশে অল্প অল্প মেঘ জমা হইতেছিল। রাত্রি একটার পরে সামান্য জল ও হাওয়া হওয়ায় কিছুক্ষণের জন্য জাহাজ বেশ একটুখানি দুলিয়া লইয়। পরদিন সকালবেলা হইতেই শিষ্ট্রশান্ত হইয়া চলিতে লাগিল । যাহাকে সমুদ্রপীড়া বলে, সে উপসর্গ টা আমার বোধ করি ছেলেবেলায় নৌকার উপরেই কাটিয়া গিয়াছিল ; স্বতরাং বমি করার দায়টা আমি একেবারেই এড়াইয়া গিয়াছিলাম। কিন্তু সপরিবার নন্দ মিস্ত্রীর কি দশা হইল, কি করিয়া রাত্রি কাটিল, জানিবার জন্য সকালেই নীচে আসিয়া উপস্থিত হইলাম। কল্যকার গায়কবৃন্দর অধিকাংশই তখনও উপুড় হইয়া পড়িয়া আছে। বুঝিলাম, রাত্রির ধকল কাটাইয় ইহারা এখনও মহাসঙ্গীতের জন্য প্রস্তুত হইতে পারে নাই। নন্দ মিস্ত্রী ও তাহার বিশ বছরের পরিবার গম্ভীরভাবে বসিয়াছিল, আমাকে দেখিয়া প্রণাম করিল। তাহদের মুখের ভাবে মনে হইল, ইতিপূর্বে একটা কলহের মত হইয়া গেছে। জিজ্ঞাসা করিলাম, রাত্রে কেমন ছিলে মিস্ত্রীমশাই ? নন্দ কহিল, বেশ । তাহার পরিবারটি তর্জন করিয়া উঠিল, বেশ, না ছাই! মা গো মা, কি কাগুই হয়ে গেল । একটু উদ্বিগ্ন হইয়া জিজ্ঞাসা করিলাম, কি কাণ্ড ? নন্দ মিন্ত্রী আমার মুখের পানে চাহিয়া হাই তুলিয়া, গোটা-দুই তুড়ি দিয়া, অবশেষে কহিল, কাণ্ড এমনকিছুই নয় মশাই । বলি, কলকাতার গলির মোড়ে সাড়েবত্রিশ-ভাজা বিক্ৰী করা দেখেছেন ? দেখে থাকলে আমাদের অবস্থাটি ঠিক বুঝে নিতে পারবেন। সে যেমন ঠোঙার নীচে গুটি দুই-তিন টোকা মেরে ভাজা চাল-ডালমটর-কড়াই-ছোলা-বরবটি-মুগুরি-খেসারি সব একাকার করে দেয়, দেবতার রূপায় আমরা সবাই ঠিক তেমনি মিশিয়ে গিয়েছিলুম—এই খানিকক্ষণ হ'ল যে যার কোট চিনে ফিরে এলে বসেচি। তাহার পর টগরের পানে চাহিয়া কহিল, মশাই, তাগ্যে আসল বেষ্টিমের জাত যায় না, নইলে টগর আমার- t টগর ক্ষিপ্ত ভল্লুকের মত গৰ্জিয়া উঠিল—আবার ! ফের ! ૨8