প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/২৭৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিরাজ-বে। তথাপি পীতাম্বব কি একটা বলিতে যাইতেছিল, কিন্তু নীলাম্বর বাধা দিয়া বলিল, বাস । একটি কথাও না—যাও । গোর্য বি নীলাম্ববের গাযের জোব প্রসিদ্ধ ছিল। পীতাম্বব আর কথা কহিতে সাহস করিল না, আস্তে আস্তে বাহিব হইয়া গেল । বিরাজ গোলমাল শুনিয়া বাহিরে আসিয়া স্বামীর হাত ধরিয়া ঘরের মধ্যে টানিয়া লইয়া গিয়া বলিল, ছি, সমস্ত জেনে-শুনে কি ভাইযেব সঙ্গে কেলেঙ্কারী করতে আছে ? নীলাম্বর উদ্বতভাবে জবাব দিল, জানি বলে কি তয়ে জড়সড় হয়ে থাকব ? আমার সব সহ হয় বিরাজ, ভণ্ডামি সহ হয় না । বিরাজ বলিল, কিন্তু তুমি ত এক নও, আজ হাত ধবে বার করে দিলে কাল কোথায় দাড়াবে, সে কথা একবার ভাব কি ? নীলাম্বব বলিল, না । যিনি ভাববােব তিনি ভাববেন, আমি ভেবে মিথ্যা দুঃখ পাই নে । বিরাজ জবাব দিল, তা ঠিক । যার কাজের মধ্যে খোল বাজান আর মহাভারত পড—তার ভাবনা চিস্তে মিছে ! কথাগুলি বিরাজ মধুর করিষ বলে নাহ, নীলাম্বরের কালেও তাহ মধু বর্ষণ করিল না, তথাপি সে সহজভাবে বলিল, ওগুলো আমি সবচেয়ে বড় কাজ বলেই মনে করি। তা ছাড়া, ভাবতে থাকলেই কি কপালেব লেখা মুছে যাবে ? বলিয়৷ সে একবার কপালে হাত দিয়া বলিল, চেযে দেখ বিরাজ, এইখানে লেখা ছিল বলে অনেক রাজা-মহারাজাকে গাছতলাষ বাস করতে হয়েছে- আমি ত অতি তুচ্ছ। বিরাজ অস্তরের মধ্যে দগ্ধ হহয়! যাইতেছিল, বলিল, ও-সব মুখে বলা যত সহজ কাজে করা তত সহজ নয। তা ছাড়া তুমিই না হয় গাছতলায় বাস করতে পার, আমি ত পারিনে। মেয়েমানুষের লজ্জাসরম আছে—আমাকে খোশামোদ করে হোক, দাসীবৃত্তি করে হোক, একটুখানি আশ্রয়ের মধ্যে বাস করতেই হবে । ছোট ভাইয়ের মন যুগিয়ে থাকতে না পার, অন্তত: হাতাহাতি কবে সব দিক মাটি ক’র না। বলিয়া সে চোখের জল চাপিয়া ক্রতপদে বাহির হইয়া গেল । স্বামী-স্ত্রীতে ইতিপূৰ্ব্বে অনেকবার অনেক কলহ হইয়া গিয়াছে। নীলাম্বর তাহ জানিত, কিন্তু আজ যাহা হইয়া গেল তাহা কলহু নহে—এ মূৰ্ত্তি তাহার কাছে একেবারেই অপরিচিত। সে স্তম্ভিত হইয়া দাডাইয়া রহিল। কয়েক মুহূর্ত পরেই বিরাজ আবার ঘরে ঢুকিয়া বলিল, অমন হতভম্ভ হ’য়ে দাড়িযে রইলে কেন ? বেলা হয়েচে—যাও, স্নানাহিক করে দুটো খাও—যে কটা দিন পাওয়া যায়, সেই কটা দিনই লাভ। বলিয়া আর একবার সে স্বামীর বুকে শূল বিধিয়া দিয়া বাহির হইয়া গেল । גארא eجسس يa