প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/৩৪৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


मद-विश्वांम রাখিল ; আলনা হইতে কাপড় লইয়া ট্রাউজার গুলির দূরের একটা চেয়ার লক্ষ্য করিয়া ছুড়িয়া ফেলিতে সেটা নীচে পড়িয়া লুটাইতে লাগিল ; নেকটাই, কলার প্রভৃতি যেখানে সেখানে ফেলিয়া দিয়া নিজের চৌকিতে গিয়া বসিতেই ঠিক সম্মুখে টেবিলের উপর ছোট্ট একটি ধাতা তাহার চোখে পড়িল—মলাটে লেখা,সংসার-খরচের হিসাব। খুলিয়া দেখিল, মেয়েলি অক্ষরের চমৎকার স্পষ্ট লেখা। দৈনিক খরচের অঙ্ক -মাছ এত, শাক এত, চাল এত ডাল এত,—হঠাৎ দ্বারের পর্দা সরানর শৰে চকিত হইয়া দেখিল, কে একজন স্ত্রীলোক প্রবেশ করিতেছে। সে আর যেই হুউক দাসী নয়, তাহা চক্ষের পলকে অনুভব করিয়া শৈলেশ হিসাবের খাতার মধ্যে একেবারে মগ্ন হুইয়া গেল । ম্বে আসিল সে তাহার পায়ের কাছে গড় হুইয়া প্রণাম করিয়া উঠিয়া দাড়াইয়া কহিল, তুমি কি এত বেলায় আবার চা থাবে না কি ? কিন্তু তা হলে আর ভাত খেতে পারবে না । ভাত খাব না । না থাও, হাত-মুখ ধুয়ে ওপরে চল । অবেলায় স্নান করে আর কাজ নেই, কিন্তু জলখাবার ঠিক করে আমি কুমুদাকে সরবৎ তৈরি করতে বলে এসেচি। চল । এখন থাক । ওগো আমি উষা—বাঘ-ভাল্লুক নই। আমার দিকে চোখ তুলে চাইলে কেউ তোমাকে ছি-ছি করবে না । শৈলেশ কহিল, আমি কি বলেচি তুমি বাঘ-ভাল্লুক ? তবে আমন করে পালিয়ে বেড়াচ্চ কেন ? আমার কাজ ছিল। তুমি বিভার সঙ্গে ঝগড়া করলে কেন ? উষা কহিল, ও তোমার বানানো কথা, তোমাকে সে কখখনো লেখেনি জামি ঝগড়া করেচি । শৈলেশ কছিল, তুমি আবদুলকে তাড়িয়েচ কেন ? কে বলেচে তাড়িয়েচি ? সে এক বছরের মাইনে পায়নি, বাড়ি যাবার জন্তে ছটুকটু করছিল ; আমি মাইনে চুকিয়ে দিয়ে তাকে ছুটি দিয়েচি। শৈলেশ বিস্থিত হইয়া কছিল, সমস্ত চুকিয়ে দিয়েচ ? তা হলে সে আর আসবে ম। গিরিধারী গেল কেন ? উষা কছিল, এ ত তোমার ভারি অন্যায়। চাকর-বাৰুরদের মাইনে না দিয়ে আটকে রাখা কেন, তাদের কি বাড়ি-ঘর-দোর নেই না কি ? আমি তাকে মাইনে দিয়ে ছেড়ে দিয়েচি । শৈলেশ কছিল, বেশ করেচ। এইবার বশিষ্ঠ মুনির আশ্রম বানিয়ে

  • BRS