প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/৩৫৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নব-বিধান শৈলেশ তাড়াতাড়ি মাথা নাড়িয়া কহিল, ন ন থাক। তাকে দেখবার জন্তে আমি ঠিক উত্তলা হয়ে উঠেনি, তাকেও মাঝে মাঝে রাখতে দিও, নইলে বা কিছু শিখেছিল ভুলে গেলে বেচারার ক্ষতি হবে। জাহার করিতে বসিয়া শৈলেশের কত যে ভাল লাগিল তাহা সেই জানে। মা যখন বাচিয়া ছিলেন-হঠাৎ সেই দিনের কথা মনে পড়িল । পাশের বাটিটা টানিয়া লইয়া কছিল, দিব্যি গন্ধ ধেরিয়েছে। গোসাইরা মাংস খায় না, তারা কাঠালের তরকারিতে গরম মসলা দিয়ে গাছ-পাঠা বলে খায়। আমার রুচিটা ঠিক অতখানি উচ্চজাতীয় নয়। তাই কাঠাল বরঞ্চ আমার সইবে, কিন্তু গাছ-পাঠা সইবে | || উষা খিল খিল করিয়া হাসিয়া উঠিল। সোমেন হাসির হেতু বুঝিল না, কিন্তু সে মায়ের কোলের উপর ঢলিয়া পড়িয়া মুখপানে চাহিয়া জিজ্ঞাসা করিল, গাছ-পাঠ কি भां ? প্রত্যুত্তরে উষা ছেলেকে আরও একটু বুকের কাছে টানিয়া লইয়া স্বামীকে শুধু কহিল, আগে খেয়েই দেখ। শৈলেশ একটুকরা মাংস মুথে পুরিয়া দিয়া কহিল, না, চারপেয়ে পাঠাই বটে, চমৎকার হয়েছে; কিন্তু এ রান্না তুমি শিখলে কি করে ? উষার মুখ প্রদীপ্ত হইয়া উঠিল, কহিল, রান্না কি শুধু তোমার আবদুলই জানে ? আমার বাবা ছিলেন সিদ্ধেশ্বরীর সেবায়েত, তুমি কি ভেবেচ আমি গোঁসাই-বাড়ি থেকে আসচি ! শৈলেশ কহিল, এই একবাটি খাবার পরে সে কথা মুখে আনে কার সাধ্য। কিন্তু আমার ত সিদ্ধেশ্বরী নেই, এ কি প্রতিদিন জুটবে ? উষা বলিল, কিসের অভাবে জুটবে না শুনি ? শৈলেশ কহিল, আবদুলের শোক ত আমি আঙ্গই ভোলবার জো করেচি, দেনা উষা রাগ করিয়া বলিল, আমি কি তোমাকে বলেচি যে, স্বামী-পুত্রকে না খেতে দিয়ে আমি দেন। শোধ করব ? দেনার কথা তুমি আর মুখেও আনতে পারবে না বলে দিচ্চি ? ' শৈলেশ কহিল, তোমাকে বলে দিতে হবে না, জেনার কৰা মুখে আম আমার चङांशद्दे नब्र । किङ् উষা বলিল, এতে কোন কিন্তু নেই। খাবার জন্তে ত দেন হয়নি। কিসের জন্তে ৰে হ’লো কিছুই ত জানিনে উষা- д উৰা জবাৰ দিল, তোমার জেনেও কোন দিন কাজ নেই। ‰8ፃ