প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/৩৮১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নব-বিধান বলতে পারছিলুম না, তিনি নিজে থেকে সেই দুরূহ কৰ্ত্তব্যটাই আমার সম্পন্ন করে দিলেন। ক্ষেত্রমোহন বিস্ময়ে বাক্ষশূন্ত হইয়া চাহিয়া রছিলেন। শৈলেশ লাজুক হুৰ্ব্বল স্বতাবের লোক, ভয়ঙ্কর কিছু উচ্চারণ করা তাহার একান্তই প্রকৃতি-বিরুদ্ধ। কিন্তু উন্মাদের মত সে কি করিতেছে । উষার ছোট ভাই লইতে আসিয়াছে এ-সংবাদ তিনি ইতিপূৰ্ব্বে পাইয়াছিলেন, অতএব অপরিচিত লোৰটি ষে সে-ই, তাহাতে সন্দেহ নাই—তাহারই সম্মুখে এ-সব কি ? ক্ষেত্রমোহন ব্যাগ্ৰ-অম্বুনয়ে হাত ছুটি প্রায় জোড় করিয়াই বলিয়া উঠিলেন, দেখবেন, আপনার দিদিকে ষেন এ-সব ঘৃণাগ্রেও জানাবেন नी । অপরিচিত ছেলেটি দ্বারের প্রতি আকৃলিনির্দেশ করিয়া ঘাড় নাড়িয়া কছিল, আমাকে কিছুই জানাতে হবে না, বাইরে দাড়িয়ে দিদি নিজের কানেই সমস্ত শুনতে পাচ্চেন । याँझेन्द्र मैंiड़िtब्र ? ७हेथांटन ? প্রত্যুত্তরে ছেলেটি জবাব দিবার পূৰ্ব্বে শৈলেশ স্পষ্ট করিয়া বলিল, ই, আমি জানি ক্ষেত্র, তিনি ওইখানে দাড়িয়ে। উত্তর গুনিয়া ক্ষেত্রমোহন স্তব্ধ বিবর্ণ হইয়া বসিয়া রছিলেন। সেইদিন ঘণ্টাছুই-তিন পরে ভগিনীকে লইয়া যখন অবিনাশ স্টেশন অভিমূখে রওনা হইল, তখন সোমেন তাহার পিসৗর বাড়িতে, তাহার পিতা কলেজ-গৃহে এবং ক্ষেত্রমোহন হাইকোর্টের বার-লাইব্রেরিতে বসিয়া । পরদিন সকালে চায়ের টেবিলে বসিয়া বিভা স্বামীকে কটাক্ষ করিয়া জিজ্ঞাসা করিল, দাদা কি করচেন দেখলে ? ক্ষেত্রমোহন কহিলেন, দেখলুম ত হাতে আছে একখানা বই, কিন্তু আসলে করচেন, বোধ করি অনুশোচনা। এ কাজটা তুমি কবে করবে ? কোনটা ? বই, না অম্বুশোচনা ? বিভা কহিল, বই তোমার হাতে আর মানাবে না, আমি শেষের কাজটাই বলচি । ক্ষেত্রমোহন খোচা খাইয়া বলিলেন, ভাইকে ডেকে বাপের বাড়ি চলে গেলেই বোধ হয় করতে পারি। বিভার মন আজ প্রসন্ন ছিল, সে রাগ করিল না। কহিল, ও কাজটা আমি বোধ হয় পেরে উঠব না। কারণ, হিছয়ানীর জপ-তপ এবং দুই-দুই করার বিদ্যেটা ছেলেবেলা থেকেই শিখে ওঠবার সুবিধে পাইনি। স্ত্রীর কৰায় ক্ষেত্রমোহন আজকাল প্রায়ই অসহিষ্ণু হইয়া পড়িতেন, এখন কিন্তু, ♥ፃ¢