প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/৪১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শ্ৰীকান্ত কথাটা তার ভাল করিয়া শেষ না হইতেই বাহিরে এমন একটা কাণ্ড ঘটিল, যাহা স্মরণ হইলে আজও লজ্জায় মরিয়া যাই । একটা গোলমাল শুনিয়া দুইজনেই ঘরের বাহিরে আসিয়া দেখি, জাহাজের সেকেণ্ড অফিসার ৬৭ জন খালাসীকে এলোপাতাড়ি লাথি মারিতেছে, এবং বুটের চোটে যে যেখানে পারিতেছে পলায়ন করিতেছে। এই ইংরাজ যুবকটি অত্যন্ত উদ্ধত বলিয়া বোধ করি ডাক্তারবাবুর সহিত ইতিপূৰ্ব্বে কোনদিন বচল হইয়া থাকিবে, আজও কলহ হইয়া গেল। ডাক্তারবাবু ক্রুদ্ধ হইয়া বলিলেন, তোমার এইরূপ ব্যবহার অত্যন্ত গৰ্হিত—একদিন তোমাকে এ জন্য দুঃখ পাইতে হইবে, তাহা বলিয়া দিতেছি। লোকটা ফিরিয়া দাড়াইয়া বলিল, কেন ? ডাক্তারবাবু বলিলেন, এ ভাবে লাথি মারা ভারী অন্যায়। লোকটা জবাব দিল, মারা ছাড়া ক্যাটল সিধা হয় ? ডাক্তারবাবু একটু স্বদেশী। তাই উত্তেজিত হইয়া বলিতে লাগিলেন, এর জানোয়ার নয়, গরীব মানুষ। আমাদের দেশী লোকেরা নম্র এবং শান্ত বলিয়াই কাপ্তেনসাহেবের কাছে তোমার নামে অভিযোগ করে না, এবং তুমিও অত্যাচার করিতে সাহস কর । হঠাৎ সাহেবের মুখ অকৃত্রিম হাসিতে ভরিয়া গেল। ডাক্তারের হাতটা টানিয়া *tion for cofol off, Look, Doctor, they are your countrymen; you ought to be proud of them চাহিয়া দেখি, কয়েকটা উচু পিপার আড়ালে দাড়াইয়া এই লোকগুলো দাত বাহির করিয়া হাসিতেছে এবং গায়ের ধূলা ঝাড়িতেছে। সাহেব একগাল হাসিয়া ডাক্তারবাবুর মুখের উপর দু'হাতের বুড়া আঙ্গুল দুটা নাড়িয়া দিয়া, আঁকিয়া-বাকিয়া শিস দিতে দিতে প্রস্থান করিল। জয়ের গৰ্ব্ব তাহার সর্বাঙ্গ দিয়া যেন ফুটিয়া পড়িতে লাগিল । ডাক্তারবাবুর মুখখানা লজ্জায়, ক্ষোভে, অপমানে কালো হইয়া গেল। দ্রুতপদে অগ্রসর হইয়া গিয়া ক্রুদ্ধকণ্ঠে বলিয়া উঠিলেন, বেহায়া ব্যাটার, দাত বার করে হাস্চিস্ যে ! এইবার এতক্ষণে দেশী লোকের আত্মসম্মানবোধ ফিরিয়া আসিল । সবাই একযোগে হাসি বন্ধ করিয়া চড়া কণ্ঠে জবাব দিল, তুমি ডাক্তারবাবু, ব্যাটা বলবার কে ? কারো কর্জ ক'রে খায়ে হাসতেচি মোরা ? আমি জোর করিয়া টানিয়া ডাক্তারবাবুকে তার ঘরে ফিরাইয়া আনিলাম। তিনি চৌকির উপর ধপ, করিয়া বসিয়া পড়িয়া শুধু বলিলেন, উঃ- ! . R. আর দ্বিতীয় কথা তার মুখ দিয়া বাহির হইল না। হওয়াও অসম্ভব ছিল। wరి(t