প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (দ্বিতীয় সম্ভার).djvu/৮৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ঞ্জীকান্তু কেউ ছাড়তে পারে না—তাগাদ করতেই হয়। তখন হাটাইটি ঝগড়াঝাটি—কেন, আমার তাতে আবশুক কি, বলুন দেখি ? আমি ঘাড় নাড়িয়া বলিলাম, সত্যই ত ! তিনি উৎসাহিত হইয়া বলিলেন, আপনি ভদ্রসন্তান, তাই কথাটা চট্‌ ক’রে বুঝলেন ; কিন্তু এই ছোটলোক লোহা-কাটা ব্যাটাদের বুঝাও দেখি ! হারামজাদ ব্যাটার সাতজন্মেও বুঝবে না। ব্যাটাদের নিজের এক পয়সা নাই, তবু পরের কাছে কর্জ ক'রে আর একজনকে টাকা এনে দেবে—-এ ছোটলোক ব্যাটার এমনি আহাম্মুক ! একটু চুপ করিয়া কহিলেন, তবেই দেখুন, কদাচ কাকেও টাকা ধার দিতে নাই। বলে, বড় কষ্ট ! কষ্ট তা আমার কি বাপু আর যদি সত্যই কষ্ট ত ক্ষু ভরি সোনা এনে রেখে যাও না, দিচ্ছি দশ টাকা ধার! কি বলেন ? বলিলাম, ঠিক ত ! তিনি বলিলেন, ঠিক নয় আবার । একশবার ঠিক! আর দেখুন ঝগড়াবিবাদের স্থানে কখনো যাবেন না। একজন খুন হয়ে গেলেও না। প্রয়োজন কি আমার ? ছাড়াতে গেলেও হয়ত দু-এক ঘা নিজের গায়েই লাগবে ; তা ছাড়া এক পক্ষ সাক্ষী মেনে বসবে। তখন কর ছটাছুটি আদালতে। বরঞ্চ থেমে গেলে ইচ্ছ হয় একবার ঘুরে এসে দুটো ভালমন্দ পরামর্শ দাও, পাচজনের কাছে নাম হবে। কি বলেন ? একটু চুপ করিয়া তিনি পুনশ্চ কহিলেন, আর এই লোকের ব্যামেী-স্তামোয়— আমি ত মশাই, পাডা মাড়াই না ; তখখনি ব’লে বসবে, দাদা মরি—এ বিপদে দুটাকা দিয়ে সাহায্য কর। মশাই, মানুষের মরণ-র্বাচনের কথা বলা যায় না—তাকে টাকা দেওয়া আর জলে ফেলে দেওয়া এক—বরঞ্চ জলে দেওয়াও ভাল, কিন্তু সে ক্ষেত্রে না। না হয় ত বলবে, এসে রাত্রি জাগতে । আচ্ছা মশাই, আমি যাবো তার অমৃখে রাত্রি জাগতে, কিন্তু এই বিদেশ-বিভূয়ে আমার কিছু-একট—ম শীতলানা করুন, এই নাক-কান মলচি মা ! বলিয়া জিভ কাটিয়া তিনি নাকে একবার হাত ঠেকাইয়া নিজের হাতে নিজের দুই কান মলিয়া একটা নমস্কার করিয়া বলিলেন, আমরা সবাই তার চরণেই ত পড়ে আছি—কিন্তু বলুন দেখি, সে বিপদে আমায় দেখে কে ? এবার আমি আর সায় দিতেও পারিলাম না। আমাকে মৌন দেখিয়া তিনি মনে মনে বোধ করি একটু দ্বিধায় পড়িয়া বলিলেন, দেখুন দেখি সাহেবদের । তারা কথখনো ওরূপ স্থানে যায় কি ? কখখনো না। নিজের একটা কার্ড পাঠিয়ে দিয়ে ব্যঙ্গ ! হয়ে গেল। তাই তাদের উন্নতিটা একবার চেয়ে দেখুন দেখি। তার পরে

हेङ्ग-०४