প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (নবম সম্ভার).djvu/১১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ বাকরি করে দিতে পারি। রাজেন বলিল, আচ্ছ। তাহার পরম বন্ধু ছিল সতীশ । যে কোনমতে অন্তরীণের দায় এড়াইয়া মেদিনীপুর জেলায় কোন একটা গ্রামে বসিয়া ব্ৰহ্মচৰ্য্যাশ্রম খুলিবার চেষ্টায় ছিল ; রাজেনের পত্র পাওয়ার সপ্তাহকাল মধ্যেই তাহার সাধুসঙ্কল্প মুলতুবি রাখিয়া আগ্রায় আসিয়া উপস্থিত হইল এবং একাকী আসিল না, অনুগ্রহ করিয়া গ্রাম হইতে একজন ভক্তকে সঙ্গে করিয়া আনিল। সতীশ এ-কথা যুক্তি ও শাস্ত্র-বচনের জোরে নির্বিশেষে প্রতিপন্ন করিয়া দিল যে, ভারতবর্ষই ধৰ্ম্ম-ভূমি। মুনি-ঋষিরাই ইহার দেবতা। আমরা ব্রহ্মচারী হইতে ভুলিয়া গিয়াছি বলিয়াই আমাদের সব গিয়াছে। এ-দেশের সহিত জগতের কোন দেশের তুলনা হয় না, কারণ আমরাই ছিলাম একদিন জগতের শিক্ষক, আমরাই ছিলাম মানুষের গুরু। সুতরাং বর্তমানে ভারতবাসীর একমাত্র করণীয় গ্রামে গ্রামে নগরে নগরে অসংখ্য ব্ৰহ্মচৰ্য্যাশ্রম স্থাপন করা। দেশোদ্ধার যদি কখনো সম্ভব হয় ত এই পথেই হইবে। শুনিয়া হরেন্দ্র মুগ্ধ হইয় গেল। সতীশের নাম সে গুনিয়াছিল, কিন্তু পরিচয় ছিল না ; স্বতরাং এই সৌভাগ্যের জন্ত সে মনে মনে রাজেনকে ধন্যবাদ দিল এবং ইতিপূৰ্ব্বে যে তাহার বিবাহ হইয়া যায় নাই এজন্য সে আপনাকে ভাগ্যবান জ্ঞান করিল। সতীশ সৰ্ব্ববাদিসন্মত ভাল ভাল কথা জানিত ; কয়েকদিন ধরিয়া সেই আলোচনাই চলিতে লাগিল । এই পুণ্যভূমির মুনি-ঋষিদের আমরাই বংশধর, আমাদেরই পূৰ্ব্বপিতামহগণ একদিন জগতের গুরু ছিলেন, অতএব আর একদিন গুরুগিরি করিবার আমরাই উত্তরাধিকারী। আর্য্যরক্তসন্তুত কোন পাষণ্ড ইহার প্রতিবাদ করিতে পারে ? পারে না এবং পারিবার মত দুৰ্ম্মতিপরায়ণ লোকও কেহ সেখানে ছিল না । হরেন্দ্র মাতিয়া উঠিল। কিন্তু ইহা তপস্তা-সাধনার বস্তু বলিয়া সমস্ত ব্যাপারটা সাধ্যমত গোপনে রাখা হইতে লাগিল, কেবল রাজেন ও সতীশ মাঝে মাঝে দেশে গিয়া ছেলে সংগ্ৰহ করিয়া আনিতে লাগিল। যাহারা বয়সে ছোট তাহারা স্কুলে প্রবেশ করিল, যাহার সে শিক্ষায় উত্তীর্ণ হইয়াছে তাহারা হরেন্দ্রর চেষ্টায় কোন একটা কলেজে গিয়া ভৰ্ত্তি হইল—এইরূপে অল্পকালেই প্রায় সমস্ত বাড়িটাই নানা বয়সের ছেলের দলে পরিপূর্ণ হইয়া উঠিল। . বাহিরের লোক বিশেষ কিছু জানিতও না, জানিবার চেষ্টাও করিত না। শুধু এইটুকুই সকলে ভাসা ভাসা রকমের গুনিতে পাইল যে, হরেন্দ্রর বাসায় থাকিয়া কতকগুলি দরিদ্র বাঙালীর ছেলে লেখাপড়া করে। ইহার অধিক অবিনাশও জানিত না, নীলিমাও না । S B