প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (নবম সম্ভার).djvu/১৫১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষ প্রশ্ন পুরুতের মন্ত্রকে মহাজন খাড় করে স্থাটা আদায় হতে পারে, কিন্তু আসল ত ভুবল । কিন্তু এ-সব তোমাকে বলা বৃথা, তুমি বুঝবে না। রাজেন চুপ করিয়া রহিল। কমল কছিল, তখন এই কথাটাই শুধু জানিনি যে র্তার টাকার লোভটা এত ছিল। জানলে অন্ততঃ লাঞ্ছনার দায় এড়াতেও পারতুম। রাজেন জিজ্ঞাসা করিল, এর মানে ? কমল সহসা আপনাকে সংবরণ করিয়া লইল, বলিল, থাক্ গে মানে। এ তোমার শুনে কাজ নেই। ** কিছুক্ষণ স্বৰ্য্য অস্ত গিয়াছে, ঘরের মধ্যে বাহিরের সন্ধ্যা ঘন হইয়া আসিল । কমল আলো জালিয়া টেবিলের একধারে রাখিয়া দিয়া স্বস্থানে ফিরিয়া আসিয়া কহিল, তা হোক, আমাকে ওর বাসায় একবার নিয়ে চল। কি করবেন গিয়ে ? নিজের চোখে একবার দেখতে চাই। যদি প্রয়োজন হয় থাকব। না হয়, তোমার ওপরে তার ভার রেখে আমি নিশ্চিন্ত হব। এইজন্যই তোমাকে ডেকে পাঠিয়েছিলুম। তুমি ছাড়া এ আর কেউ পারবে না। র্তার প্রতি লোকের বিতৃষ্ণার সীমা নেই। বলিতে বলিতে সে সহসা বাতিটা বাড়াইয়া দিবার জন্ত উঠিয়া পিছন ফিরিয়া দাড়াইল । রাজেন কহিল, বেশ, চলুন। আমি একটা গাড়ী ডেকে আনি গে। বলিয়া সে বাহির হইয় গেল । গাড়ীতে উঠিয়া বসিয়া রাজেন বলিল, শিবনাথবাবুর সেবার ভার আমাকে অর্পণ করে আপনি নিশ্চিন্ত হতে চান, আমিও নিতে পারতাম। কিন্তু এখানে আমার থাকা চলবে না, শীঘ্রই চলে যেতে হবে। আপনি আর কোন ব্যবস্থার চেষ্ট করুন। কমল উদ্বিগ্ন হইয়া জিজ্ঞাসা করিল, পুলিশে বোধ করি পিছনে লেগে অতিষ্ঠ । করেচে ? তাদের আত্মীয়তা আমার অভ্যাস আছে—সেজন্ত নয় । কমল হরেন্দ্রর কথা স্মরণ করিয়া বলিল, তবে আশ্রমের এরা বুঝি তোমাকে চলে যেতে বলচেন ? কিন্তু পুলিশের ভয়ে যারা এমন আতঙ্কিত, ঘটা করে তাদের দেশের কাজে না নামাই উচিত। কিন্তু তাই বলে তোমাকে চলে যেতেই বা হবে কেন ? এই আগ্রা শহরেই এমন লোক আছে যে স্থান দিতে এতটুকু ভয় পাবে না। রাজেন কহিল, সে বোধ করি আপনি স্বয়ং ; কথাটা গুনে রাখলাম, সহজে ভুলব না। কিন্তু এ দৌরাত্ম্যে ভয় পায় না ভারতবর্ষে তেমন লোকের সংখ্যা বিরল। থাকলে দেশের সমস্ত ঢের সহজ হয়ে যেত । 置 >82