প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (নবম সম্ভার).djvu/১৫৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


( e কিছুক্ষণ চুপ করিয়া দাড়াইল, পরে হাতের ছোট পুটুলিটা পাশের টিপায়ের উপর রাথিয়া দিয়া কহিল, অন্যান্ত মেয়েদের মত আপনাকে যা ভেবেছিলাম তা নয়। আপনার পরে নির্ভর করা যায় । কমল নিঃশব্দে ফিরিয়া চাহিল। রাজেন কহিল, ইতিমধ্যে দেখচি বিছানাটা পৰ্য্যন্ত বদলে ফেলেচেন। খুজে পেতে না হয় বার করলেন, কিন্তু ওকে তুলে শোয়ালেন কি করে ? কমল আস্তে আস্তে বলিল, জানলে শক্ত নয়। কিন্তু জানলেন কি করে ? জানবার ত কথা নয়। কমল বলিল, জানার কথা কি কেবল তোমাদেরই ? ছেলেবেলায় চা-বাগানে আমি অনেক রুগীর সেবা করেচি । তাই ত বলি ! এই বলিয়া সে আর একবার চারিদিকে চাহিয়া দেখিয়া কহিল, আসবার সময় সঙ্গে করে সামান্য কিছু খাবার এনেচি ৷ কুঁজোয় জল আছে দেখে গিয়েছিলাম। খেয়ে নিন, আমি বসচি। কমল তাহার মুখের পানে চাহিয়া একটু হাসিল, কহিল, খাবার কথা ত তোমাকে বলিনি, হঠাৎ এ খেয়াল হ’ল কেন ? রাজেন বলিল, খেয়াল হঠাৎই হ’ল সত্যি। নিজের যখন পেট ভরে গেল, তখন কি জানি কেন মনে হ’ল আপনারও হয়ত ক্ষিদে পেয়ে থাকবে । আসবার পথে দোকান থেকে কিছু কিনে নিয়ে এলাম। দেরি করবেন না, বসে যান। এই বলিয়া সে নিজে গিয়া জলের কুঁজোট তুলিয়া আনিল। কাছে কলাই-করা একটা গ্লাস ছিল, কহিল, সবুর করুন, বাইরে থেকে এটা মেঙ্গে আনি । এই বলিয়া সেটা হাতে করিয়া চলিয়া গেল। এ-বাড়ির কোথায় কি আছে সে কালই জানিয়া , গিয়াছিল। ফিরিয়া আসিয়া সন্ধান করিয়া একটুকরা সাবান বাহির করিল, কহিল, অনেক ঘাটাঘাটি করেচেন, একটু সাবধান হওয়া ভাল। আমি জল ঢেলে দিচ্চি, খাবার আগে হাতটা ধুয়ে ফেলুন। কমলের পিতার কথা মনে পড়িল। র্তাহারও এমনি কথার মধ্যে বিশেষ রস-কস ছিল না, কিন্তু আন্তরিকতায় ভরা। কহিল, হাত ধুতে আপত্তি নেই, কিন্তু খেতে পারব না ভাই । তুমি হয়ত জান না যে আমি নিজে রেধে খাই, আর এইসব দামী ভাল ভাল থাবারও থাইনে। আমার জন্য ব্যস্ত হবার আবশ্বক নেই, অন্তান্ত দিন যেমন হয়, তেমনি বাসায় ফিরে গিয়েই খাব। তা হলে আর রাত না করে বাসাতেই ফিরে চলুন, আপনাকে দিয়ে আসিগে। >80.