প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (নবম সম্ভার).djvu/৫৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎসাহিত্য-সংগ্ৰহ কমল বলিল, মিথ্যে ত বলিনে। এই যেমন প্রাণও সত্য, দেহও সত্য, কিন্তু প্রাণ যখন যায় ? মনোরমা পিতার হাত ধরিয়া টানিয়া বলিল, বাবা, ভারি হিম পড়বে, এখন না উঠলেই যে নয়। এই যে মা উঠি ! শিবনাথ হঠাৎ দাড়াইয়া উঠিয়া বলিলেন, শিবানি, আর দেরি করে না, চল । কমল তৎক্ষণাৎ উঠিয়া দাড়াইল ; সকলকে নমস্কার করিল, বলিল, আপনাদের সঙ্গে পরিচয় হ’ল যেন কেবল তর্ক করার জন্তই। কিছু মনে করবেন না । শিবনাথ এতক্ষণ পরে একবার হাসিলেন, বলিলেন, তর্কই শুধু করলে শিবানি, শিখলে না কিছুই । কমল বিস্ময়ে. কণ্ঠে বলিল, না । কিন্তু শেখবার কোথায় কি ছিল আমার মনে পড়চে না ত । শিবনাথ কহিলেন, পড়বার কথাও নয়, সে এমনি আড়ালেই রইল। পার যদি আপ্তবাবুর জরাগ্রস্ত বুড়ে মনটাকে একটু শ্রদ্ধা করতে শিখে । তার বড় আর শেখবার কিছু নেই। কমল সবিস্ময়ে কহিল, এ তুমি বলচ কি আজ ? শিবনাথ জবাব দিল না, পুনরায় সকলকে নমস্কার করিয়া বলিল, চল। আপ্তবাবু দীর্ঘশ্বাস ফেলিয়া শুধু বলিলেন, আশ্চৰ্য্য! • আশ্চৰ্য্যই বটে। এ-ছাড়া মনের কথা ব্যক্ত করিবার আর শব্দ ছিল কি ? বস্তুতঃ উহারা চলিয়া গেল যেন এক অত্যাশ্চর্য নাটকের মধ্য-অঙ্কেই যবনিক টানিয়া দিয়া— পর্দার ও-পিঠে না জানি কত বিস্ময়ের ব্যাপারই অগোচর রহিল। সকলের মনের মধ্যে এই একটা কথাই তোলপাড় করিতে লাগিল এবং সকলেরই মনে হইল, যেন 88