প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (নবম সম্ভার).djvu/৮৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎসাহিত্য-সংগ্ৰহ অজিত নিজেও কিছুক্ষণ মৌন থাকিয়া বলিল, আসবার সময় আপনার জন্তে কিছু টাকা এনেছিলাম। নেবেন ? Fil না কেন ? আমি নিশ্চয়ই জানি আপনার হাতে কিছুই নেই। যাও বা ছিল, আজ আমারই জন্ত তা নিঃশেষ হয়েচে । কিছু উত্তর না পাইয়া সে পুনশ্চ কহিল, প্রয়োজনে বন্ধুর কাছে কি কেউ নেয় না ? কমল কছিল, কিন্তু বন্ধু ত আপনি নন। না-ই হ’লাম। কিন্তু অ-বন্ধুর কাছেও ত লোকে ঋণ নেয় ; আবার শোধ দেয়। আপনি তাই কেন নিন না । কমল ঘাড় নাড়িয়া কহিল, আপনাকে বলেচি আমি কখনোই মিথ্যে বলিনে। কথা মৃদু, কিন্তু তীরের ফলার ন্যায় তীক্ষু। অজিত বুঝিল ইহার অন্যথা হইবে না। চাহিয়া দেখিল প্রথম দিনে তাহার গায়ে সামান্ত অলঙ্কার যাহা কিছু ছিল আজ তাহাও নাই। সম্ভবতঃ বাড়ি-ভাড়া ও এই কয়দিনের খরচ চালাইতে শেষ হইয়াছে। সহসা ব্যথার ভারে তাহার মনের ভিতরটা কাদিয়া উঠিল। জিজ্ঞাসা করিল, কিন্তু যাওয়াই কি স্থির ? কমল কহিল, তা ছাড়া উপায় কি আছে ? উপায় কি আছে সে জানে না এবং জানে না বলিয়াই তাহার কষ্ট হইতে লাগিল। শেষ চেষ্টা করিয়া কহিল, জগতে কি কেউ নেই যার কাছে এ-সময়েও কিছু সাহায্য নিতে পারেন ? কমল একটুখানি ভাবিয়া বলিল, আছেন। মেয়ের মত র্তার কাছে গিয়েই শুধু হাত পেতে নিতে পারি। কিন্তু আপনার যে রাত হয়ে যাচ্ছে। সঙ্গে গিয়ে এগিয়ে দেব কি ? অজিত ব্যস্ত হইয়া বলিল, না, না, আমি একাই যেতে পারবো। তা হলে আমুন, নমস্কার। বলিয়া কমল তাহার শোবার ঘরে গিয়া প্রবেশ করিল। অজিত মিনিট-দুই সেখানে স্তন্ধভাবে দাড়াইয়া রছিল। তার পরে নিঃশব্দে ধীরে ধীরে নামিয়া গেল। ፃፀ