প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (পঞ্চম সম্ভার).djvu/২৬৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দর্পচূৰ্ণ ডাক্তার ? ডাক্তার কি হবে রে, ও আপনি সেরে যাবে। এ্যা ! ডাক্তার পর্য্যন্ত ডাকাওনি ? ক’দিন হলো ? নরেন্দ্র একটুখানি হাসিয়া বলিল, ক’দিন ? এই ত সেদিন রে । দিন-সাতেক হবে বোধ হয় ! সাত দিন ! তা হলে বোঁ সমস্ত দেখেই গেছে! না না, দেখে যায়নি বোধ হয়—অসুখ আমার নিশ্চয় সে বুঝতে পারেনি। আমি তার যাবার দিনও উঠে গিয়ে বাইরে বসে ছিলুম। না না, হাজার রাগ হোক, তাই কি তোরা পারিস বোন ? বে তা হলে রাগ করে গেছে, বল ? না, রাগ নয়, দুঃখ-কষ্ট—কত অভাব জানিস্ত ? ওদের এ-সব সহ করা অভ্যাস নেই, দেহটাও তার বড় খারাপ হয়েছে, নইলে অমুখ দেখলে কি তোরা রাগ করে থাকতে পারিস্ ? বিমলা অশ্র চাপিয়া কঠিন-স্বরে বলিল, পারি বৈ-কি দাদা, আমাদের অসাধ্য কাজ কিছুই নেই । না হলে তোমবা বিছানায় না শোয়া পৰ্য্যন্ত আর আমাদের চোখে পড়ে না! ভোলা, পালকি এলো রে ? আনতে পাঠিয়েচি মা । এর মধ্যে যাবি দিদি ? এখনো ত সন্ধ্যে হয়নি, আর একটু বোস না ? না দাদা, সন্ধ্যে হলে হিম লাগবে ! ভোলা, পালকি একেবারে ভেতরে আনিল । ভেতরে কেন বিমল ? ভেতরেই ভাল দাদা। এই ব্যথা নিয়ে তোমার বাইরে গিয়ে উঠতে কষ্ট হবে। আমাকে নিয়ে যাবি ? এই পাগল দেখ ! কি হয়েচে যে এত কাণ্ড করতে হবে ? এ ত আমার প্রায়ই হয় ? প্রায়ই সেরে যায়। তাই যাক দাদা। কিন্তু "ভাই" ত আমার আর নেই যে, তোমাকে হারালে আর একটি পাব। ঐ যে পালকি—এই র্যাপারখানা বেশ করে গায়ে জড়িয়ে নিয়ে। ভোলা, আর একটু এগিয়ে আনতে বল—না দাদা, এ-সময় তোমাকে চোখে-চোখে না রাখতে পারলে আমার তিলাৰ্দ্ধ স্বস্তি থাকবে না । কিন্তু, নিয়ে যেতে চাইবি বুঝলে যে তোকে আমি খবরই দিতুম না। বিমলা মুখপানে চাহিয়া থাকিয়া বলিল, তোমাদের বোঝা তোমাদেরই থাকৃ দাদা, আমাকে আর শুনিয়ে না। আচ্ছা, কি করে মুখে আনলে বল ত ? এই অবস্থায় তোমাকে একলা ফেলে যেতে পারি ! সত্যি কথা বল। নরেন্দ্র একটা নিশ্বাস ফেলিয়া বলিল, তবে চল যাই । झांझी ! ২৬৩