পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (পঞ্চম সম্ভার).djvu/৩৭০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্রহ সে অাছে জলধির মধ্যে, সে অাছে এককড়িদা’র ভিতরে । তাই ত গেল আমার চাকরি । তিন বছরের রাত্রিদিনের সেবা একমুহূর্তের ভর সইলো না। তুমি নিজে মনিব হলেও আমার চাকরি ঠিক এমনি করেই যেতে, রমেন । রমেন ক্ষুব্ধ হয়ে বললে, আমি মনিব যখন নয় তখন সে প্রমাণ দিতে পারলাম না। কিন্তু তুমি মিথ্যে তিলকে তাল করছে, মণি । বুড়োর তামাসাটা সত্যি হলে কি মানুষ আজও বেঁচে থাকতো ! কোন কালে নিঃশেষ হয়ে যেতো। নিঃশেষ না হবার অন্ত হেতু আছে, রমেন। কারণ, মানুষকে রাখার ভার পুরুষের পরে নেই, সে আছে আর একজনের পরে। তাই ত দেখি নর-নারী এতকাল এক সঙ্গে থেকেও আজও সন্ধির একটা ফরমূলা খুজে পেলে না, কোন পথে দুঃখের নিরসন, সে দিকটাই তাদের চোখে পড়লো মা চিরদিন কানা হয়ে রইলো। রমেন আস্তে আস্তে বললে, মণি কেন জানিনে, কিন্তু মনে হচ্ছে আজ তোমার মনটা অত্যন্ত উদভ্ৰাস্ত হয়ে আছে। উচ্চত্রাস্ত ? হতে পারে। কিন্তু একটা প্রশ্নের হঠাৎ জবাব পেয়ে গেলাম। ভেবেছিলাম ওদের অনুরোধ শুনবো না, বিবাহ-বিচ্ছেদের প্রস্তাব আমার মুখ দিয়ে বার হবে না, কিন্তু এখন স্থির করলাম, এ প্রস্তাব আমি নিজেই আনবো । রমেন একটু হেসে বললে, সে না হয় করলে, কিন্তু জিনিসটা ভাল কি মন্দ, মানুষের অভিজ্ঞতায় এর দাম কি নির্দিষ্ট হয়েছে তার কি জ্ঞান তোমার আছে মণি ? মণি বললে, কোন জ্ঞানই নেই,—ইতিহাস ত জানিনে,—আর যেটুকু আছে সেও তুমি ইচ্ছে করলে খণ্ড খণ্ড করে দিতে পার, কিন্তু তোমার কথা আমি শুনবো না। বরঞ্চ এই কথাই জোর করে বলবো, আমার অস্তরের সত্য অমুভূতি আমাকে সত্য পথ দেখিয়ে দেবেই দেবে । সত্য অনুভূতি পেলে কখন ? এইমাত্র। তুমি পরিহাসের ছলে যা বললে তার মধ্যে । সে কি কখনো হয় ? হয় রমেন, হয় । গল্প শোননি, আমাদের লালাবাবু মেছুনির মুখের একটা উড়ো কথা শুনে সংসার ত্যাগ করে গিয়েছিলেন । অথচ কত লোক ত দিন-রাত শোনে, তারা কি ঘর-দোর ফেলে সন্ন্যাসী হয়ে যায় ? কিন্তু যে শুনতে পায় সে-ই やmてó*研 মণি, তুমি যে এত বড় পাগল আমার ধারণা ছিল না। মণি হেসে বললে, পাগলই ত। নইলে কি দেশের জন্তে জেল খাটতে যেতে :পারতাম : প্রাণ দিতেও রাজী ছিলাম। তুমি পারে ? 3טאא