প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (পঞ্চম সম্ভার).djvu/৫৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ এই জামাইবাবাজী মানুষটির মাথার ডগা হইতে জুতার তলা পৰ্য্যস্ত সমস্তই নিষ্কলঙ্ক সাহেবী। সুতরাং প্রত্যুত্তরে মৃদু-মধুর হাসিয়া তিনিও যে জবাবটুকু দিলেন তাহাও নিখুঁত সাহেবী । কহিলেন, এই সব মোহস্ত মোহস্তানী জাতের লোকগুলোর ব্যাপার সবাই জানে, এরা যেমন অসাধু তেমনি অসচ্চরিত্র। এদের অসাধ্য কাজ নেই। কোন কারণেই এদের প্রশ্রয় দেওয়া অনুচিত, কিন্তু আপনাদের ভৈরবীটি ঠিক কি করেচেন না-করেচেন সেটাও নিশ্চিত জানা উচিত। শিরোমণি বলিয়া উঠিলেন, বাবা নিৰ্ম্মল, জানার আর বাকি কোথাও কিছুই নেই—কি বল মা, এখনো কি তোমার সন্দেহ আছে ? তা ছাড়া তার মা— সেই যে একটা মস্ত কথা ! এই বলিয়া তিনি হৈমর দিকে বিশেষ একটু কটাক্ষ করিলেন । হৈম অধোমুখে স্তব্ধ হইয়া রহিল । তাহার সলজ্জ নীরবতায় ইহাই সকলে অনুভব করিলেন যে, সে ভৈরবীর বিরুদ্ধে সুস্পষ্ট অভিযোগ করিতে লজ্জা এবং সংকোচ বোধ করিতেছে, কিন্তু তাহার সম্বন্ধে ভাল কথা বলিবারও তাহার কিছু माझे । জনাৰ্দ্দন কন্যাকে সম্বোধন করিয়া কহিলেন, মা, সমস্তদিন উপোস ক’রে তোমার মুখ শুকিয়ে গেছে, যাও, তুমি বাড়ির ভেতরে যাও। ভৈরবীকে ডাকতে লোক পাঠানো হয়েচে, যদি আসে ত তোমাকে খবর দেবো । হৈম চলিয়া যাইতেছিল, এমন সময় যে লোকটা ডাকিতে গিয়াছিল, ফিরিয়া আসিয়া যাহা জানাইল তাহার সারমৰ্ম্ম এই যে, ভৈরবী কেবল যে তাহার প্রজা দিগম্বর ও বিপিনকে দিয়া তালা ভাঙ্গাইয়া সমস্ত ঘরগুলো দখল করাইয়া লইয়াছেন তাই নয়, রায় মহাশয়েয় হুকুম অগ্রাহ করিয়া এখানে আসিতেও সম্মত হয় নাই। শুধু কেবল ফকির সাহেবের অনুরোধেই অবশেষে স্বীকার করিয়াছেন । বোধ হয় দশ-পনের মিনিটের মধ্যেই আসিতে পারেন । বোধ হয় আসিতে পারেন । তা বটে ! জলন্ত অঙ্গারে ঘৃতাহুতি পড়িল এবং সামান্য একটা স্ত্রীলোকের অভাবনীয় দুঃসাহস ও স্পৰ্দ্ধায় সন্ত্রাস্ত পুরুষগুলির মুখ দিয়া যে-সকল শব্দ ও বাক্যাবলীর প্রবাহ নিঃস্থত হইল তাহার আদ্যোপাস্ত উল্লেখ না করিয়াও একটা কথা বলার আবশ্বক যে, এই ভ্ৰষ্ট নারীকে কেবল এই মুহূৰ্ত্তেই গ্রাম হইতে বিদূরিত করা নয়, ইহাকে তালা-ভাঙা ও অনধিকার প্রবেশের জন্য পুলিশের হাতে দিয়া জেল-খাটানোর প্রয়োজনীয়তা তাহারা অসংশয়ে প্রকাশ করিলেন। শুধু জামাতা-বাবাজীই এই কোলাহলে যোগদান করিলেন না ; খুব সম্ভব, তিনি তাহার সাহেবী ও ব্যারিস্টারী এই উভয় মৰ্য্যাদা রক্ষা করিতেই গম্ভীর হইয়া বসিয়া রহিলেন । Gipo