পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/১৬৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


श्फुिि কিন্তু নিতান্ত স্বাভাবিক। স্বরেন্দ্রের পিতা রায় মহাশয় ইহা বহুদিন হইতে জানিতেন এবং আশা করিতেন। স্বরেন্দ্রের মাতামহ পাবনা জেলার একজন মধ্যবিত্ত জমিদার। কুড়ি-পঁচিশখানি গ্রামে জমিদারি ; বাৎসরিক আয় প্রায় চল্লিশ-পঞ্চাশ হাজার টাকা হইবে। একে তিনি অপুত্ৰক, খরচ-পত্র স্বভাবতঃ কম, তাহাতে তিনি একজন প্রসিদ্ধ কৃপণ ছিলেন । তাই তাহার স্বদীর্ঘ জীবনে বহু অর্থ সঞ্চিত করিতে পারিয়াছিলেন। র্তাহার অবর্তমানে সমস্ত বৈভব একমাত্র দৌহিত্র স্বরেন্দ্রনাথ পাইবে, রায় মহাশয় ইহা স্থির জানিতেন। তাহাই হইল। রায় মহাশয় সংবাদ পাইলেন, শ্বশুর মহাশয় আসন্ন মৃত্যুশয্যায় শয়ন করিয়াছেন। তাড়াতাড়ি পুত্রকে লইয়া পাবনা যাত্রা করিলেন। কিন্তু পৌছাইবার পূৰ্ব্বেই শ্বশুর মহাশয় পরলোকগমন করিলেন । সমারোহ করিয়া শ্ৰাদ্ধ-শান্তি হইল। শৃঙ্খলিত জমিদারিতে আরো শৃঙ্খলার ঘটা পড়িয়া গেল। পরিপক্ক-বুদ্ধি প্রাচীন উকিল রায় মহাশয়ের কড়া বন্দোবস্তে, প্রজারা সন্ত্রস্ত হইয়া উঠিল । এখন স্বরেন্দ্রের বিবাহ হওয়া আবশ্যক। ঘটকের আনাগোনায় গ্ৰামময় আন্দোলন পড়িয়া গেল। পঞ্চাশ ক্রোশের মধ্যে যে বাড়িতে একটি স্বন্দরী কন্যা ছিল, সেই বাড়িতেই ঘটকের দল ঘন ঘন পদধূলি দিয়া পিতামাতাকে আপ্যায়িত ও আশান্বিত করিতে লাগিল—এমনভাবে দুই মাস, ছয় মাস অতিবাহিত হইল। অবশেষে বিমাতা আসিলেন, তাহার সম্পর্কে যে-কেহ ছিল, সেও আসিল— বন্ধু-বান্ধবে গৃহ পুরিয়া গেল । তাহার পর, একদিন প্রভাতে, বাশি বাজাইয়া, ঢাকের প্রচণ্ড শব্দ করিরা, কাসির খনখন আওয়াজে সমস্ত গ্রাম পরিপূরিত করিয়া স্বরেন্দ্রনাথ বিবাহ করিয়া আসিল। সপ্তম পরিচ্ছেদ প্রায় পাচ বৎসর অতিবাহিত হইয়া গিয়াছে। রায়-মহাশয়ও আর নাই, ব্রজরাজ লাহিড়ীও স্বর্গে গিয়াছেন। স্বরেন্দ্রের বিমাতা স্বৰ্গীয় স্বামী-দত্ত সমস্ত সম্পত্তি টাকাকড়ি লইয়া পিতৃভবনে বাস করিতেছেন। আজকাল স্বরেন্দ্রনাথের যেমন মুখ্যাতি, তেমনি অখ্যাতি। একদল লোক কহে, এমন বন্ধুবৎসল, উদারচেতা, অমায়িক ইয়ার-প্রতিপালক জমিদার আর নাই। অন্যদল কহে, এমন উৎপীড়ক, অত্যাচারী জমিদার এ-তল্লাটে কখনও জন্মায় নাই । 36tు