প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/১৮২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ স্বরেন্দ্রনাথ চক্ষু মুহিয়া মুহম্বরে বলিল, আঃ তাই ! বিশ্বের আরাম যেন এই ক্রোডে লুকাইয়া ছিল । এতদিন পরে স্বরেন্দ্রনাথ তাহ খুজিয়া পাইয়াছে। অধরের কোণে সরক্ত হাসিও ফুটিয়া উঠিয়াছে—বড়দিদি, যে কষ্ট । তরতর ছলছল করিয়া নৌকা ছুটিয়াছে। ছইয়ের ভিতর স্বরেস্ত্রের মুখের উপর টাদের কিরণ পড়িয়াছে। নয়নতারার মা একটা ভাঙ্গা পাখা লইয়া মুস্তু মৃদু বাতাস করিতেছে। স্বরেন্দ্রনাথ ধীরে ধীরে কহিল, কোথায় যাচ্ছিলে ? মাধবী ভগ্নকণ্ঠে কহিল, প্রমীলার শ্বশুরবাড়ি । ছি. এমন করে কি কুটুমের বাড়ি যেতে আছে দ্বিণি । জশম পরিচ্ছেদ নিজের অট্টালিকায়, তাহার শয়নকক্ষে, বড়দিদির কোলে মাথা রাখিয়া স্বরেন্দ্রনাথ মৃত্যুশয্যায় শুই আছে। পা-দুটি শান্তি কোলে করিয়া অশ্রজলে ধুইয়া দিতেছে । পাবনায় যতগুলি ডাক্তার-কবিরাজ সমবেত চেষ্টা ও পরিশ্রমেও রক্ত বন্ধ করিতে পারিতেছে না। পাচ বৎসর পূৰ্ব্বেকার সেই আঘাতে এখন রক্ত-বৰ্মন করিতেছে । মাধবীর অন্তরের কথা খুলিয়া বলিতে পারিব না। আমি নিজেও ভাল জানি না, বোধ করি, তাহার পাঁচ বৎসর পূর্বের কথা মনে পড়িতেছে । বাড়ি হইতে সে তাড়াইয়া দিয়াছিল, আর ফিরাইতে পারে নাই ; পাঁচ বৎসর পরে স্বরেন্দ্রনাথ কিন্তু তাহাকে फिब्राहेब्र) थॉनिब्रांप्छ् । - -সন্ধ্যার পর উজ্জল দীপালোকে স্বরেন্দ্রনাথ মাধবীর মুখের পানে চাহিল । পায়ের কাছে শান্তি বসিয়া আছে, সে যেন শুনিতে ন পায়-হাত দিয়া ভাই মাধবীর মূখ আপনার মুখের কাছ টানিয়া আনিয়া বলিল, বড়দিদি, সেদিনের কথা মনে পড়ে, সেমি তুমি আমাকে তাড়িয়ে দিয়েছিলে । আমি তাই এখন শোধ নিয়েছি, তোমাকেও ভাড়িয়ে দিয়েছিলাম, কেমন, শোধ হ’ল ত ? মুহূর্তের মধ্যে মাধবী চৈতন্য হারাইয়া লুঠত-মস্তক স্বরেস্ত্রের স্বন্ধের পার্ধে রাখিল—, ধখন জ্ঞান হইল, তখন বাটীময় ক্ৰন্দনের রোল উঠিয়াছে : সমাপ্ত እዋm