প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/৩২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ একে ত এই পৃথিবীর সেরা সনাতন হিন্দুর ঘরে বশিষ্ট ইত্যাদির পবিত্র পূজ্য রক্তের বংশধর হইয়া জন্মিয়া, জন্মগত সংস্কারবশতঃ মৃতদেহু স্পর্শ করাকেই একটা ভীষণ কঠিন ব্যাপার বলিয়া ভাবিতে শিখিয়াছি, ইহাতে কতই না শাস্ত্রীয় বিধিনিষেধের বাধাবাধি, কতই না রকমারি কাণ্ডের ঘটা ! তাহাতে এ কোন রোগের মড়া, কাহার ছেলে, কি জাত—কিছুই না জানিয়া এবং মরিবার পর এ ছোকৃরা ঠিকমত প্রায়শ্চিত্ত করিয়া শ্বর হইতে বাহির হইয়াছিল কিনা, সে খবরটা পৰ্য্যস্ত না লইয়াই বা ইহাকে স্পর্শ করা যায় কিরূপে ? কুষ্ঠিত হইয়া যেই জিজ্ঞাসা করিলাম, কি জাতের মড়া—তুমি ছোবে ? ইন্দ্র সরিয়া আসিয়া একহাত তাহার ঘাড়ের তলায় এবং অন্যহাত হাটুর নীচে দিয়৷ একটা শুষ্ক তৃণ খণ্ডের মত স্বচ্ছদে তুলিয়া লইয়া কহিল, নইলে বেচারাকে শিয়ালে ছেড়া-ছিড়ি করে খাবে। আহা ! মুখে এখনো এর ওষুধের গন্ধ পৰ্য্যস্ত রয়েচে রে! বলিয়া নৌকার ষে তক্তাধানির উপর ইতিপূৰ্ব্বে আমি গুইয়া পড়িয়াছিলাম, তাহারই উপর শোয়াইয়া নৌকা ঠেলিয়া দিয়া নিজেও চড়িয়া বসিল। কহিল, মড়ার কি জাত থাকে রে ? আমি তর্ক করিলাম, কেন থাকবে না ? ইন্দ্ৰ কহিল, আরে এ যে মড় । মড়ার আবার জাত কি ? এই যেমন আমাদের ডিঙিটা -এর কি জাত আছে ? আমগাছ, জামগাছ যে কাঠেরই তৈরী হোকএখন ডিঙি ছাড়া একে কেউ বলবে না-আমগাছ, জামগাছ-বুঝলি না ? এও তেমনি । দৃষ্টান্তটি যে নেহাৎ ছেলেমাহুষের মত, এখন তাহা জানি। কিন্তু অন্তরের মধ্যে ইহাও ত অস্বীকার করিতে পারি না—কোথায় যেন অতি তীক্ষু সত্য ইহারই মধ্যে আত্মগোপন করিয়া আছে । মাঝে মাঝে এমৃনি খাটি কথা সে বলিতে পারিত। তাই অামি অনেক সময়ে ভাবিয়াছি, ওই বয়সে কাহারো কাছে কিছুমাত্র শিক্ষা না করিয়া বরঞ্চ প্রচলিত শিক্ষা-সংস্কারকে অতিক্রম করিয়া এই সকল তত্ত্ব সে পাইত কোথায় ? এখন কিন্তু বয়সের সঙ্গে সঙ্গেই ইহার উত্তরটাও যেন পাইয়াছি বলিয়া মনে হয় । কপটতা ইন্দ্রের মধ্যে ছিলই না। উদ্দেপ্তকে গোপন রাখিয়া কোন কাজ সে করিতেই জানিত না । সেই জন্যেই বোধ করি তাহার পেই হৃদয়ের ব্যক্তিগত বিচ্ছিন্ন সত্য কোন অজ্ঞাত নিয়মের বশে সেই বিশ্বব্যাপী অবিচ্ছিন্ন নিখিল সত্যের দেখা পাইয়া, অনায়াসে অতি সহজেই তাহাকে নিজের মধ্যে আকর্ষণ করিয়া আনিতে পারিত ! তাহার যুদ্ধ সরল বৃদ্ধি পাক৷ গুপ্তাদের উমোরি না করিয়াই ঠিক ব্যাপারটি টের পাইত। বাস্তবিক, অকপট