প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/৩৪৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চন্দ্রনাথ চন্দ্রনাথ নিকটে আসিয়া দাড়াইল। ডাকিল, সরযু। সরযু চমকিত হইল। জড়সড় হইয়া বলিল, গাঙ্গে । তুমি রাখতে পারো ? সরযু মাথা নাডিয়া কহিল, পারি। কি কি রাখতে শিখেছ? * সরযু চুপ করিয়া রহিল, কেন না, এ পরিচয় দিতে হইলে অনেক কথা কহিতে क्ष्ध्र ! চন্দ্রনাথ মনের ভাবটা বুঝিতে পারিল, তাই অন্ত প্রশ্ন করিল ; তোমার মা ও তুমি দুই জনেই এখানে কাজ কর ? সরযু ঘাড় নাড়িয়া বলিল, করি। তুমি কত মাইনে পাও? মা পান, আমি পাই নে। আমি শুধু খেতে পাই। খেতে পেলেই তুমি কাজ কর ? সরযু চুপ করিয়া রহিল। চন্দ্রনাথ কহিল, মনে কর, অামি যদি খেতে দিই, তা হ’লে আমারও কাজ কর । সরযু ধীরে ধীরে বলিল, মাকে জিজ্ঞাসা করব। ত ই কোরো। সেইদিন চন্দ্রনাথ হরিদয়াল ঠাকুরকে দুই-একটা কথা জিজ্ঞাসা করিয়া বাটতে সরকার মহাশয়কে এইরূপ পত্র লিখিল— আমি কাশীতে আছি। এখানে এই মাসের মধ্যেই বিৰাহ করিব স্থির করিয়াছি । মাতুল মহাশয়কে এ কথা বলিবেন এবং আপনি কিছু অর্থ, অলঙ্কার এবং প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি লইয়া শীঘ্ৰ আসিবেন। সেই মাসেই স্ত্রনাথ সরযুকে বিবাহ করিল। তাহার পর বাট যাইবার সময় আসিল । সরযু কাদিয়া বলিল, মার কি হবে ? আমাদের সঙ্গে যাবেন । কথাটা বামুন-ঠাকুরুণের কানে গেল। তিনি কস্তা সরযুকে নিভৃতে ডাকিয়া বলিলেন, সরযু, সেখানে গিয়ে তুই আমার কথা মাঝে মাঝে মনে করিল, কিন্তু আমার নাম কখনো মুখে আনিস না। যত দিন বঁাচবো, কাশী ছেড়ে কোথাও যাব না। তবে যদি কখনো তোমাদের এ অঞ্চলে আসা হয়, তা হ’লে আবার দেখা হ’তে পারে। সৱযুক্টাদিতে লাগিল । סיפקי