প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/৩৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰন্থ ---এই এল, মেজদা ! বলিয়া বাড়ি ফাটাইয়া আমার আগমন-বাৰ্ত্তা ঘোষণা করিয়া দিল, এবং মুহূৰ্ত্ত বিলম্ব না করিয়া পরম সমাদরে আমার হাতটি ধরিয়া টানিয়া আনিয়া বৈঠকখানার পাপোশের উপর দাড় করাইয়া দিল । সেখানে মেজদা গভীর মনোযোগের সহিত পাশের পড়া পড়িতেছিলেন। মূখ তুলিয়া একটিবার মাত্র আমার প্রতি দৃষ্টিপাত করিয়া পুনশ্চ পড়ায় মন দিলেন। অর্থাৎ বাণ শিকার হস্তগত করিয়া নিরাপদে বসিয়া যেরূপ অবহেলার সহিত অন্যদিকে চাহিয়া থাকে, তাহারও সেই ভাব। শাস্তি দিবার এত বড় মাহেন্দ্রযোগ তাহার ভাগ্যে আর কখনও ঘটিয়াছে কি না সন্দেহ। মিনিট-খানেক চুপচাপ। সারারাত্রি বাহিরে কাটাইয়া গেলে কর্ণ-যুগল ও উভয় গণ্ডের উপর যে-সকল ঘটনা ঘটবে তাহা অামি জানিতাম। কিন্তু আর ষে দাড়াইতে পারি না ! অথচ কৰ্ম্মকৰ্ত্তারও ফুরসৎ নাই। তাহারও যে আবার ‘পাশের পড়া ! আমাদের এই মেজদাদাটিকে আপনার বোধ করি এত শীঘ্ৰ বিস্তৃত হন নাই। সেই, যাহার কঠোর তত্ত্বাবধানে কাল সন্ধ্যাকালে আমরা পাঠাভ্যাস করিতেছিলাম, এবং ক্ষণেক পরেই র্যাহার মুগম্ভীর "ত্মো তেী’ রবে ও সেঙ্গ উন্টানোর চোটে গত রান্ত্রির সেই ‘দি রয়েল বেঙ্গল’কেও দিশাহারা হুইয়া একেবারে ডালিমতলায় ছুটিয়া পলাইতে হইয়াছিল—সেই তিনি । পাজিটা একবার দেখ, দেখি রে সতীশ, এ বেলা আবার বেগুন খেতে আছে না কি ; বলিতে বলিতে পাশের দ্বার ঠেলিয়া পিসীমা ঘরে পা দিয়াই আমাকে দেখিয়া অবাক হইয়া গেলেন—কখন এলি রে । কোথায় গিয়েছিলে ? খন্তি ছেলে বাবা ভূমি—সারা রাত্রিটা মুম্বতে পারিনি—ভেবে মরি, সেই ষে ইন্ত্রের সঙ্গে চুপি চুপি বেরিয়ে গেল—জার দেখা নেই। না খাওয়া, না দাওয়া ; কোথা ছিলি বল ত হতভাগা । মুখ কালিবর্ণ, চোখ রাঙা—ছল ছল করছে, বলি জরটর হয় নি ত ? কই, কাছে আয় ত, গা দেখি—একসঙ্গে এতগুলো প্রশ্ন করিয়া পিসীমা নিজেই আগাইয়া আলিয়া আমার কপালে হাত দিয়াই বলিয়া উঠিলেন, বা ভেবেচি ভাই। এই যে বেশ গা গরম হয়েচে । এমন সব ছেলের হাত-পা বেঁধে জলবিছুটি দিলে তবে আমার রাগ যায়। তোমাকে বাড়ি থেকে একেবারে বিদায় ক'রে তবে আমার আর কাজ । চল ঘরে গিয়ে গুবি, শায় হতভাগা ছোড়া । ৰলিয়। তিনি বাৰ্ত্তাকু-ভক্ষণের প্রশ্ন বিশ্বত হইয়া আমার হাত ধরিয়া কোলের কাছে छैiश्रेिब्रां जहे८णन । মেজ জলদগষ্ঠীরকণ্ঠে সংক্ষেপে কহিলেন, এখন ও যেতে পারবে না । "Φυ