পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/৩৮৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ দিলেন, তাহার পর ভিতরে আসিয়া একসহস্ৰ করিয়া ছুইখানি নোট বাক্স খুলিয়া রাখালদাসের হাতে দিয়া বলিলেন, এখান থেকে দশ ক্রোশ দূরে সরকারী খাজনাঘর, সেখানে ভাঙ্গিয়ে নিয়ো, আর কোথাও ভাঙান যাবে না। আর কখনো এ দিকে এসো না। আমি তোমার উপর সন্তুষ্ট নই, তাই আর যদি কখনো এ দিকে আসবার .চেষ্টা কর, জীবিত ফিরতে পারবে না, তাও বলে দিলাম। রাখালদাস চলিয়া গেল । প্রাণপণে হাটিয়া অপরাহ্নে সে শহরে উপস্থিত হইল। তখন কাছারি বন্ধ হইয়াছে। কোন কাজ হইল না। পরদিন যথা সময়ে রাখালদাস খাজাঞ্জির নিকট দুইখানি হাজার টাকার নোট দিয়া কহিল, টাকা চাই । খাজাঞ্চিবাৰু নোট দুইখানি ঘুরাইর ফিরাইয়া দেখিয়া, বোসে, বলিয়া বাইরে গিয়া একজন পুলিশের দারোগ সঙ্গে লইয়া ফিরিয়া আসিয়া রাখালকে দেখাইয়া দিয়া বলিলেন, এই নোট চুরি হয়েছে। জমিদার মণিশঙ্করবাবুর লোক বলচে, কাল সকালে ভিক্ষার ছল করে তার ঘরে ঢুকে এই দুখানি নোট চুরি কৰেচে । নোটের নম্বর মিলচে । রাখালদাস কহিল, জমিদারবাবু নিজে দিয়েছেন। খাজাঞ্চি কহিল, বেশ হাকিমের কাছে বলে । যথা সময়ে হাকিমের কাছে রাখাল বলিল, যার টাকা, তাকে জিজ্ঞাসা করলেই সমস্ত পরিষ্কার হবে। বিচারের দিন ডেপুটির আদালতে জমিদার মণিশঙ্কর উপস্থিত হইয়া হলফ লইয়া বলিলেন, তিনি লোকটাকে জীবনে কখনও দেখেন নাই। নোট র্তাহারই বাক্সে ছিল, কাহাকেও দেন নাই। রাখাল নিজেকে বাচাইবার জন্য অনেক কথা কহিতে চাহিল, হাকিম তাহ কতক কতক লিখিয়া লইলেন,কতক বা মণিশরের উকিল-মোক্তার গোলমাল করিয়া দিল । মোটের উপর, কথা কেহই বিশ্বাস করিল না, ডেপুটি তাহার দুই বৎসর সশ্রম কারাবাসের হুকুম করিলেন। ՑՊէր