প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/৩৮৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চন্দ্রনাথ কৈলাসচন্দ্র এক হাতে দাবার পুটুলি অপর হাতে ছক লইয়। ভিতরে প্রবেশ করিলেন। তিনি যে এইমাত্র আসিয়াছিলেন, তাহা নহে ; গোলমাল শুনিয়া বাহিরে দাড়াইয়া হরিদয়ালের তিরস্কার ও গালিগালাজ শুনিতেছিলেন । তাই যখন ভিতরে প্রবেশ করিলেন, তখন হাতে দাবার পুটুলি ও হক ছিল, কিন্তু মুখে হাসি ছিল না। সোজা সরযুর কাছে আসিয়া দাড়াইয়া কহিলেন, সরযু যে ! কথন এলে মা ? সরষু কৈলাসধুড়োকে চিনিত, প্রণাম করিল। তিনি আশীৰ্ব্বাদ করিলেন, এস মা, এস । তোমাদের ছেলের বাড়িতে না গিয়ে এখানে কেন মা ? তাহার পর ছক নামাইয়া রাখিয়া সরযুর টিনের বাক্সট একেবারে কক্ষে তুলিয়া লইয়া বলিলেন, চল মা, সন্ধ্যা হয় । কথাগুলি তিনি এরূপভাবে কহিলেন, যেন তাহাকে লইবার জন্যই আসিয়াছিলেন। সরযু কোন কথাই পরিষ্কার বুঝিতে পারিল না, অধোমুখে বসিয়া রহিল । কৈলাসচন্দ্র ব্যস্ত হইলেন, বলিলেন, তোর বুড়ো ছেলের বাড়ি যেতে লজ্জা কি ? সেখানে কেউ তোকে আপমানের কথা বলবে না, মা-ব্যাটায় মিলে নূতন ক’রে ঘরকন্না করব, চল মা, দেরি করিসূনে । সরযু তথাপি উঠিতে পারিল না। হরিদয়াল হাকিয়া বলিলেন, খুড়ো, কি করচো ? কিছু না বাবাজী। কিন্তু তখনই সরযুর খুব নিকটে আসিয়া হাতখানি প্রায় ধরিয়া ফেলিবার মত করিয়া নিতাস্ত কাতরভাবে বলিলেন, চল না মা, ব’সে বসে কেন মিছে কটু কথা শুৰুচিল ? সরযু উঠিয়া দাড়াইল দেখিয়া হরিদয়াল কহিলেন, খুড়ে কি একে বাড়ি নিয়ে যাচ্চ ? 省 খুড়ে জবাব দিলেন, না বাবা, রাস্তায় বসিয়ে দিতে যাচ্চি। ব্যঙ্গোক্তি শুনিয়া হরিদয়াল বিরক্ত হইয়া বলিলেন, কিন্তু খুড়ে, কাজটি ভাল হচ্চে না । কাল কি হবে, ভেবে দেখো । কৈলাস তাহার উত্তর দিলেন না, কিন্তু সরযুকে কহিলেন, শীগগিরি চল না মা, নইলে আবার হয়ত কি ব’লে ফেলবে। সর দরজার বাহিরে আসিয়া পড়িল। কৈলাসচন্দ্রও ঘাড়ে বাক্স লইয়া পশ্চাতে চলিলেন । হরিদয়াল পিছন হইতে কহিলেন, খুড়ে, শেষে কি জাতটা দেবে ? কৈলাসচন্দ্র না ফিরিয়াই বলিলেন, বাবাঙ্গী, নাও ত দিতে পারি। \ご戦*。