প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/৪০৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চত্রনার্থ কিন্তু কি ? শুকিয়ে গেছে ? না, তা নয়,--আমি এখানে র"াধি । বাড়িতেও ত রণধতে ? সরযু একটু থামিয়া কহিল, আমার হাতে থাবে ? এইবার চন্দ্রনাথ মুখ নত করিল। এতক্ষণ তাহার মনে হয় নাই যে সরযু পর হইয়া গিয়াছে, কিংবা তাহার স্পর্শিত অল্পব্যঞ্জন আহার করা যায় না। কিন্তু সরযুর কথার ভিতর বড় জাল ছিল। বহুক্ষণ চুপ করিয়া বসিয়া রহিল, তারপর ধীরে ধীরে কহিল, সরযু, দুপুরবেলা আমার চোখের জল না দেখলে কি তোমার তৃপ্তি হবে না? সরযু তাড়াতাড়ি উঠিয়া দাড়াইল—যাই, তবে আনি গে। রন্ধনশালায় প্রবেশ করিয়া সে বড় কান্না কালি, তার পর চক্ষু মুছিল, জল দিয়া ধুইয়া ফেলিল, আবার অশ্র আসে, আবার মুছিতে হয়, সরযু আর আপনাকে কিছুতে সামলাইতে পারে না । কিন্তু স্বামী অভুক্ত বসিয়া আছেন, তখন অল্পের থালা লইয়া উপস্থিত হইল। কাছে বসিয়া বহুদিন পূর্বের মত যত্ন করিয়া আহার করাইয়া উচ্ছিষ্ট পাত্র হাতে লইয়া আর একবার ভাল করিয়া কাদিবার জন্য রন্ধনশালায় প্রবেশ করিল। *. বেলা দুইটা বাজিয়াছে। চন্দ্রনাথের ক্রোড়ের কাছে বিশ্বেশ্বর পরম আরামে ঘুমাইয়াছে। সরযু প্রবেশ করিল। চন্দ্রনাথ কহিল, সমস্ত কাজকৰ্ম্ম সারা হ’ল ? কাজ কিছুই ছিল না। জ্যাঠামশাই এখনও আসেননি। তাহার পর সরযু ঘর-কন্নার কথা পাড়িল। বাড়ির প্রতি ঘর, প্রতি সামগ্ৰী, মাতুল-মাতুলানী, দাসদাসী, সরকারমশায়, হরিবালা, সই, পাড়া-প্রতিবেশী, একে একে সমস্ত কথা জিজ্ঞাসা করিল। এই সময়টুকুর মধ্যে দু’জনের কাহারই মনে পড়িল না যে, সরযুর এ-সব জানিয়া লাভ নাই, কিংবা এ-সকল সংবাদ দিবার সময় চন্দ্রনাথেরও ক্লেশ হওয়া উচিত। একটু লজ্জা, একটু বিমর্ষতা, একটু সঙ্কোচের আবশ্বক। একজন পরম আনন্ধে প্রশ্ন করিতেছে, অপরে উৎসাহের সহিত উত্তর দিতেছে। নিতান্ত বন্ধুর মত দুইজনে যেন পৃথক হইয়াছিল, আবার মিলিয়াছে। সহসা সরযু জিজ্ঞাসা করিল, বিয়ে করলে কোথায় ? এটা ধেন নিতান্ত পরিহাসের কথা । চন্দ্রনাথ বলিল, পশ্চিমে । কেমন বেী হ’ল ? তোমার মত । 鸵神