প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (প্রথম সম্ভার).djvu/৬৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ঐকাস্ত তখন উভয়ে বাহিরে দাড়াইম্বা তারস্বরে চীৎকার করিয়া, এবং যত প্রকার ফন্দি মানুষের মাথায় আসিতে পারে, তাহার সবগুলি একে একে চেষ্টা করিয়া, আধঘণ্টা পরে রিক্তহস্তে ফিরিয়া আসিলাম । কিন্তু ঘাট ষে জনশূন্ত ! জ্যোৎস্নালোকে যতদূর দৃষ্টি চলে, ততদূরই যে শূন্য ! "জঙ্গিপাড়া’র চিহ্নমাত্র কোথাও নাই। ডিঙি যেমন ছিল, তেমনি রহিয়াছে-ইনি গেলেন কোথায় ? দু'জনে প্রাণপণে চীৎকার করিলাম—নতুনদা, ও নতুনদা ! কিন্তু কোথায় কে । ব্যাকুল আহবান শুধু বাম ও দক্ষিণের সু-উচ্চ পাড়ে ধাক্কা ধাইয়া অস্পষ্ট হুইয়া বারংবার ফিরিয়া আসিল । এ অঞ্চলে মাঝে মাঝে শীতকালে বাঘের জনশ্রুতিও শোনা যাইত। গৃহস্থ কৃষকের দলবদ্ধ 'ছড়ারে'র জালায় সময়ে সময়ে ব্যতিব্যস্ত হইয়া উঠিত। সহসা ইন্দ্র সেই কথায়ই বলিয়া বসিল, বাঘে নিলে না ত রে । ভয়ে সৰ্ব্বাঙ্গ কাটা দিয়া উঠিল—সে কি কথা ! ইতিপূৰ্ব্বে র্তাহার নিরতিশয় অভদ্র ব্যবহারে আমি অত্যন্ত কুপিত হইয়া উঠিয়াছিলাম সত্য, কিন্তু এতবড় অভিশাপ ত দিই নাই । সহসা উভয়েরই চোখে পড়িল, কিছু দূরে বালুর উপর কি একটা বস্তু চাদের আলোয় চকুচকু করিতেছে । কাছে গিয়া দেখি, তারই সেই বহুমূল্য পাম্প মু’র একপাটি। ইন্দ্র সেই ভিজা বালির উপরেই একেবারেই শুইয়া পড়িল-ঐকাত্ত রে! আমার মাসীমাও এসেছেন যে ! আমি আর বাড়ি ফিরে যাব না। তখন ধীরে ধীরে সমস্ত বিষয়টাই পরিস্ফুট হইয়া উঠিতে লাগিল। আমরা যখন মুনীর দোকানে দাড়াইম্বা তাহাকে জাগ্ৰত করিবার ব্যর্থ প্রয়াস পাইতেছিলাম, তখন এই দিকের কুকুরগুলার ষে সমবেত আৰ্ত্তচীৎকার আমাদিগকে এই দুর্ঘটনার সংবাদটাই গোচর করিবার ব্যর্থপ্রয়াস পাইতেছিল, তাহা জলের মত চোখে পড়িল । তখনও দূরে তাহাদের ডাক শুনা যাইতেছিল। আর সংশয়মাত্র রহিল না ষে নেকড়েগুলো উাহাকে টানিয়া লইয়া গিয়া সেখানে ভোজন করিতেছে, তাহারই আশে পাশে দাড়াইয়া সেগুলো এখনও চেঁচাইয়া মরিতেছে। অকস্মাৎ ইন্দ্র সোজা উঠিয়া দাড়াইয়া কহিল, আমি যাব । আমি সতয়ে তাহার হাত চাপিয়া ধরিলাম—তুমি পাগল হয়েচ ভাই ! ইক্স তাহার জবাব দিল না। ডিঙিতে ফিরিয়া গিয়া লগিটা তুলিয়া লইয়া কাধে ফেলিল। একটা বড় ছুরি পকেট হইতে বাহির করিয়া বা-হাতে লইয়া কহিল, তুই থাক শ্ৰীকান্ত ; আমি না এলে ফিরে গিয়ে বাড়িতে খবর দ্বিসূ—জামি চললুম। তাহার মুখ অত্যন্ত পাণ্ডুর, কিন্তু চোখ-দুটাে জলিতে লাগিল। তাহাকে আমি চিনিয়াছিলাম। এ তাহার নিরর্থক শূন্ত আস্ফালন নয় যে, হাত ধৰিয়৷ అని