প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/১৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


शृंश्मेंॉइं ঠিকানা লেখবার জন্য ত তোমাকে ব্রাহ্ম-মেয়ের দ্বারস্থ হতে হবে না। তোমার অসময়ে সে কি বাটনা বেটে, কুটনো কুটে তোমাকে এক-মুঠো ভাত রোধে দেবে ? রোগে তোমার কি সেবা করবে ? সে শিক্ষা কি তাদের আছে ? ভগবান না করুন, কিন্তু সে দুঃসময়ে সে যদি না তোমাকে ছেড়ে চলে আসে ত আমার সুরেশ নামের বদলে যা ইচ্ছে ব'লে ডেক, আমি দুঃখ করব না । মহিম চুপ করিয়া রহিল। স্বরেশ পুনরায় কহিতে লাগিল, মহিম, তুমি ত জান, আমি তোমার মঙ্গল ভিন্ন কখনো ভুলেও অমঙ্গল কামনা করতে পারিনে। আমি অনেক ব্রাহ্ম মহিলা দেখেচি। দু-একটি ভালও যে দেখিনি, তা নয়, কিন্তু আমাদের হিন্দুঘরের মেয়ের সঙ্গে তাদের তুলনাই হয় না। তোমার বিবাহেই যদি প্রবৃত্তি হয়েছিল, আমাকে বললে না কেন ? আচ্ছা, যা হবার হয়েচে, আর তোমার সেখানে গিয়ে কাজ নাই । আমি কথা দিচ্ছি, এক মাসের মধ্যে তোমাকে এমন কন্যা বেছে দেব যে, জীবনে কখনো দুঃখ পেতে হবে না ; যদি না পারি, তখন না হয় তোমার যা ইচ্ছা ক'রো–এর শ্ৰীচরণেই মাথা মুড়িও, আমি বাধা দেব না ; কিন্তু এই একটা মাস তোমাকে ধৈর্য্য ধ’রে আমাদের আশৈশব বন্ধুত্বের মর্য্যাদা রাখতেই হবে। বল রাখবে ? * মহিম পূৰ্ব্ববৎ মৌন হইয়া রহিল—ই, না, কোন কথাই কহিল না ; কিন্তু বন্ধু যে বন্ধুর শুভকামনায় কিরূপ মর্যান্তিক বিচলিত হইয়াছে, তাহা সম্পূর্ণ অনুভব করিল। স্বরেশ কহিল, মনে করে দেখ দেখি মহিম, ব্রাহ্ম না হয়েও তুমি যখন প্রথম ব্রাহ্ম মন্দিরে যাতায়াত শুরু করলে, তখন কি তোমাকে বারংবার নিষেধ করি নি ? তোমার জন্যে এত বড় এই কলকাতা সহরের মধ্যে কি একটাও হিন্দু-মন্দির ছিল না যে, এই কপটতার কিছুমাত্র আবশ্বকতা ছিল ? এমনিভাবে একটা-না-একটা বিড়ম্বনার ভেতরে যে অবশেষে জড়িয়ে পড়বে, আমি তখনই সন্দেহ করেছিলাম । মহিম এবার একটুখানি হাসিয়া কহিল, তা যেন করেছিলে, কিন্তু আমি ত তা করি নাই যে, আমার যাওয়ার মধ্যে কপটতা ছিল ; কিন্তু একটা কথা জিজ্ঞাসা করি স্কুরেশ, তুমি নিজে ত ভগবান পৰ্য্যন্ত মান না, যে হিন্দুর ঠাকুর-দেবতা মানবে ! আমি ব্রাহ্মর মন্দিরেই যাই, আর হিন্দুর মন্দিরেই যাই তাতে তোমার কি আসে যায় ? . স্বরেশ দৃপ্তম্বরে কহিল, যা নেই তা আমি মানিনে। ভগবান নেই, ঠাকুর-দেবতা মিছে কথা ; কিন্তু যা আছে তাদের ত অস্বীকার করিনে। সমাজকে আমি শ্রদ্ধা করি, মাস্থ্যকে পূজা করি। আমি জানি মানুষের সেবা করাই মনুষ্যজন্মের চরম সার্থকতা। যখন হিন্দুর বংশে জন্মেচি, তখন হিন্দুসমাজ রক্ষা করাই আমার কাজ । 剑