প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/৩৩২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎ-সাহিত্য-সংগ্ৰহ তুমি আমাকে লও বা না লও, ফিরিয়া চাহ বা না চাহ, আমি তোমার চিরদাসী। প্রাণ যায় তাহাও স্বীকার, কিন্তু তোমাকে কিছুতেই ছাড়িব না। এ-জন্মে না পাই, আর জন্মে নিশ্চয়ই পাইব ; তখন দেখিবে, সতী-সাধবীর ক্ষুদ্র বাহুতে কত বল! অনুপমা বড়লোকের মেয়ে, বাটীসংলগ্ন উষ্ঠানও আছে, মনোরম সরোবরও আছে ; সেথা চাদও উঠে, পদ্মও ফুটে, কোকিলও গান গায়, মধুপও ঝঙ্কার করে, এইখানে সে ঘুরিয়া ফিরিয়া বিরহ-ব্যথা অনুভব করিতে লাগিল। এলোচুল করিয়া অলঙ্কার খুলিয়া ফেলিয়া, গাত্রে ধূলা মাখিয়া, প্রেমের যোগিনী সাজিয়া সরসীর জলে কখনও মুখ দেখিতে লাগিল ; কখনও নয়ন-জলে ভাসাইয়া গোলাপ-পুষ্প চুম্বন করিতে লাগিল ; কখনও অঞ্চল পাতিয়া তরুতলে শয়ন করিয়া হা-হুতাশ ও দীর্ঘশ্বাস ত্যাগ করিতে লাগিল ; আহারে রুচি নাই, শয়নে ইচ্ছা নাই, সাজ-সজ্জায় বিষম বিরাগ, গল্প-গুজবে রীতিমত বিরক্তি—অনুপমা দিন দিন শুকাইতে লাগিল । দেখিয়া অঙ্কুর জননী মনে মনে প্রমাদ গনিলেন—এক বই মেয়ে নয়, তার আবার এ কি হইল ? জিজ্ঞাসা করিলে সে কি যে বলে, কেহ বুঝিতে পারে না, ঠোঁটের কথা ঠোটেই মিলাইয়া যায়। অমুর জননী আর একদিবস জগবন্ধুবাবুকে বলিলেন, ওগো, একবার কি চেয়ে দেখবে না ? তোমার একটি বই মেয়ে নয়, সে যে বিনি চিকিৎসায় মরে যায়। জগবন্ধুবাবু বিস্মিত হইয়া বলিলেন, কি হ’ল ওর ? তা জানিনে। ডাক্তার আসিয়া দেখিয়া শুনিয়া বলিলেন, অমুখ-বিমুখ কিছুই নাই ! তবে এমন হয়ে যায় কেন ? জগবন্ধুবাবু বিরক্ত হইয়া বলিলেন, তা কেমন করে জানব ? তবে মেয়ে আমার মরে যাক ? এ ত বড় মুস্কিলের কথা, জর নেই, বালাই নেই, শুধু শুধু যদি মরে যায় ত আমি কি করে ধরে রাখব ! গৃহিণী শুল্কমুখে বড়বন্ধুমাতার নিকট ফিরিয়া আসিয়া বলিলেন, বোমা, অন্ত্র আমার এমন করে বেড়ায় কেন ? কেমন করে জানব মা ? তোমাদের কাছে কি কিছু বলে না ? কিছু না । ox8