প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/৩৭৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শরৎসাহিত্য-সংগ্ৰহ ভারতেই একদিন ছিল, যখন এই চন্দ্র ও স্বর্ঘ্যের বিবাহ-ব্যাপারটা খাটি সত্য ঘটনা বলিয়া গ্রহণ করিতে মানুষ ইতস্ততঃ করে নাই। আবার আজ যাহাকে সত্য বলিয়া আমরা অসংশয়ে বিশ্বাস করিতেছি, তাহাকেই হয়ত আমাদের বংশধরেরা রূপক বলিয়া উড়াইয়া দিবে। আজ আমরা জানি, সুর্য্য এবং চন্দ্র কি বস্তু এবং এইরূপ বিবাহব্যাপারটাও কিরূপ অসম্ভব ; তাই ইহাকে রূপক বলিতেছি । কিন্তু এই সুক্তই যদি আজ কোন পল্লীবাসিনী বৃদ্ধ নারীর কাছে বিবৃত করিয়া বলি, তিনি সত্য বলিয়া বিশ্বাস করিতে বিন্দুমাত্রই দ্বিধা করিবেন না! কিন্তু তাহাতে কি বেদের মাহাত্ম্য বৃদ্ধি করিবে ? তববিভূতিবাবু ঋগ্বেদের ১০ম মণ্ডলের ৯• স্বত্ত উদ্ধৃত করিতে গিয়া কঠিন হইয়া বলিতেছেন,—“ইহাতেও কাহারও সন্দেহ থাকিলে তাহার চক্ষে অঙ্গুলি দিয়া দশম মণ্ডলের ৯ স্বত্ত বা প্রখ্যাত পুরুষস্থক্তের দ্বাদশ ঋক্টি দেখাইয়া দিব, যথা— ব্রাহ্মণোহন্ত মুখমাসীদ্বাহ রাজন্তঃ কুতঃ। উরু তদস্ত যম্বেন্ত পদ্ভ্যা: শূত্রে অজায়ত ।” অর্থ-“সেই পরমপুরুষের মুখ হইতে ব্রাহ্মণ, বাহু হইতে রাজন্য বা ক্ষত্রিয়, উরু হইতে বৈগু এবং পদদ্বয় হইতে শূদ্র উৎপন্ন হইল। ইহার অপেক্ষ চাতুৰ্ব্বর্ণ্যের আর স্পষ্ট উল্লেখ কি আর হইতে পারে ? এই স্বত্তটির বিচার পরে হইবে। কিন্তু এ-সম্বন্ধে অধ্যাপক ম্যাক্সমুলার প্রভৃতি পাশ্চাত্য পণ্ডিতদিগের উদেশ্ব ভববিভূতিবাবু যাহা ব্যক্ত করিয়াছেন, তাহা সমীচীন বলিয়া মনে হয় না। ইনি বলিতেছেন, “আমাদের চাতুৰ্ব্বৰ্ণ প্রথার অৰ্ব্বাচীনতা প্রতিপন্ন করিয়া আমাদের ভারতীয় সভ্যতাকে আধুনিক জগৎসমক্ষে প্রচার করা পাশ্চাত্য পণ্ডিতগণের প্রধান উদেষ্ঠ হইতে পারে এবং সেই উদেশ্বর বশবর্তী হইয়া झे-" ಜ উদ্দেশ্যকে সকলেই নিন্দ করিবে, সন্দেহ নাই। কিন্তু সমস্ত উদ্দেশ্যেরই একটা অর্থ থাকে। এখানে অর্থটা কি ? একটা সত্য বস্তুর কদৰ্থ বা কু-অৰ্থ করার হেয় উপায় অবলম্বন করিয়া চাতুৰ্ব্বৰ্ণাকে বৈদিক যুগ হইতে নিৰ্ব্বাসিত করিয়া তাহাকে অপেক্ষাকৃত আধুনিক প্রতিপন্ন করায় এই পাশ্চাত্য পণ্ডিতদিগের লাভটা কি ? শুধু চাতুৰ্ব্বৰ্ণাই কি সভ্যতা ? ইহাই কি বেদের সর্বপ্রধান রত্ন ? চাতুৰ্ব্বৰ্ণ বৈদিক যুগে থাকার প্রমাণ আমরা দাখিল না করিতে পারিলেই কি জগৎসমক্ষে প্রতিপন্ন হইয়া যাইবে যে, আমাদের পিতামহের বৈদিক যুগে অসভ্য ছিল ? পাশ্চাত্য পণ্ডিতেরা মিশর, বেবিলন প্রভৃতি দেশের সভ্যতা ৮১° হাজার বৎসর পূর্বের বলিয়া মুক্তকণ্ঠে স্বীকার করিয়াছেন। আমাদের বেলাই তাহাদের এতটা নীচতা প্রকাশ করিবার হেতু কি ? তা ছাড়া, অধ্যাপক ম্যাক্সমুলার ঋকবেদের প্রতি যে শ্রদ্ধা প্রকাশ করিয়া \రిట్ట