প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/৪১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


श्रृंश्लाइ মুরেশ তাহার পেয়ালাটার প্রতি দৃষ্টি নিবদ্ধ করিয়া কহিল, টাকাটা কবে আপনার প্রয়োজন ? কেদারবাবু মুখ হইতে কোকোর পেয়ালাটা পুনরায় নামাইয়া রাখিয়া বলিলেন, প্রয়োজন ত আমার নয় সুরেশ, প্রয়োজন তোমাদের । বলিয়া একটুখানি উচ্চ অঙ্গের হাস্ত করিলেন । হেঁয়ালিটা বুঝিতে না পারিয়া মুরেশ মুখ তুলিয়া চাহিতেই দেখিল, অচলা জিজ্ঞাস্বমুখে পিতার মুখের পানে চাহিয়া আছে । তিনি একবার কন্যার মুখে, একবার সুরেশর মুখ দৃষ্টিনিক্ষেপ করিয়া কহিলেন, এর মানে বোঝা ত শক্ত নয়। বাড়িটা অামি ত সঙ্গে করে নিয়ে যাব না । যায় তোমাদেরই যাবে, আর থাকে তোমাদেরই দু’জনের থাকলে । বলিয়া মৃদু হাসিতে লাগিলেন । দু’জনের চেখাচেখি হইল, এবং চক্ষেল পলকে উভযেক্ট আরক্তযুখে মাথ। ষ্টেট করিয়া কেলিল । .* BBBSB BBBS BBBB BBBS BBBBB BBBK BBB BB BBB BB BBB BBBS BBB BBS BBDDS ggBBS BB BBB KBB ভরি কষ্ট হ’ল সুরেশ, কল দুপুরবেল এখানে খপে, পলিয়। নিমন্ত্ৰণ করিয়৷ পশ্চিম দিকের দরজা খুলিয়া ততার নিজের ধরে চলিয় গেলেন । 穿 খোলা দরজা দিয়া অস্তোন্মুখ স্তব্যের এক ঝলক রঙ আলো মুরেশের মুখের উপর অসিয়া পড়িল । সে ঘাড় ফিরাইয়া দেখিতে পাইল, অচলা তাহার প্রতি একদুষ্টে চাহিয়া আছে--সেও দৃষ্টি অবনত করিল। মিনিট-দুই বড় ঘড়িটার খট খট, শব্দ ছাড়া সমস্ত ঘরটা নিস্তব্ধ হইয়া রহিল । Ես ঘরে নীরবতা ভঙ্গ করিল স্বরেশ, কহিল, হঠাৎ আচ্ছ একটা কাণ্ড করে বসলুম। অচলা কথা কহিল না । স্বরেশ পুনরায় কহিল, আপনার নিশ্চয়ই আমাকে একটা রাক্ষস বলে মনে হচ্চে । একলা বসে থাকতে বোধ করি আপনার সাহস হচ্চে না, না ? বলিয়া টানিয়া টানিয়া হাসিতে লাগিল। অচলা এখনও মুখ তুলিল না; কিন্তু তুলিলে দেখিতে পাইত, স্বরেশের ওই একান্ত চেষ্টার নিষ্ফল হাসিটা শুধু তাহার নিজের মুখখানাকেই বারংবার অপমানিত করিয়া লজ্জায় বিকৃত হইয়া উঠিতেছে। আবার সমস্ত ঘরটা নিস্তব্ধ হইয়া রহিল, এবং সেই দেওয়ালের গায়ের ঘড়িটাই VII ৭ম-৫