প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শরৎ সাহিত্য সংগ্রহ (সপ্তম সম্ভার).djvu/৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ছহিদশক্ৰছ S মহিমের পরম বন্ধু ছিল মুরেশ । একসঙ্গে এফ. এ. পাশ করার পর সুরেশ গিয়া মেডিকেল কলেজে ভৰ্ত্তি হইল ; কিন্তু মহিম তাহর পুরাতন সিটি কলেজেই টিকিয়া রহিল । সুরেশ অভিমানক্ষুন্ন-কণ্ঠে কহিল, মহিম, আমি বার বার বলচি, বি.এ., এম.এ. পাশ করে কোন লাভ হবে না । এখনও সময় আছে, তোমার ও মেডিকেল কলেজেই ভৰ্ত্তি হওয়া উচিত । মহিম সহস্তে কহিল, হওয়া ত উচিত, কিন্তু খরচের কথাটাও ত ভাবা উচিত । খরচ এমনই কি বেশী যে, তুমি দিতে পার না? তা-ছাড়া তোমার স্কলারশিপও আছে । - মহিম হাসিমুখে চুপ করিয়া রহিল। সুরেশ অধীর হইয়া কহিল, ন না—হাস নয় মহিম, আর দেরি করলে চলবে না, তোমাকে এরই মধ্যে এ্যাডমিশন নিতে হবে, তা-বুলে দিচ্ছি। খরচপত্রের কথা পরে বিবেচনা কর যাবে । মহিম কহল, আচ্ছা । সুরেশ বলিল, দেখ মহিম, কোনটা যে তোমার সত্যকারের আচ্ছা, আর কোনটা নয়—তা আজ পর্যন্ত আমি বুঝে উঠতে পারলুম না । কিন্তু পথের মধ্যে তোমাকে সত্য করিয়ে নিতে পারলুম না, কারণ, আমার কলেজের দেরি হচ্ছে। কিন্তু কাল-পরশুর মধ্যে এর যা-হোক একটা কিনরা না করে আমি ছাড়ব না । কাল সকালে বাসায় থেক, আমি যাব । বলিয়া সুরেশ তাহার কলেজের পথে দ্রুতপদে প্রস্থান করিল। 豪 藻 肇 দিন-পনের কাটিয়া গিয়াছে । কোথায় বা মহিম, আর কোথায় তাহার মেডিকেল কলেজে এ্যাডমিশন লওয়া ! একদিন রবিবারের দুপুরবেলা মুরেশ বিস্তর খোজাখুজির পর একটা দীনহীন ছাত্রাবাসে আসিয়া উপস্থিত হইল। সোজা উপরে উঠিয়া গিয়া দেখিল, সুমুখের একটা অন্ধকার স্যাতসেঁতে ঘরের মেঝের উপর ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন কুশাসন পাতিয়া ছয়-সাতজন আহারে বসিয়াছে। মহিম মুখ তুলিয়া অকস্মাৎ বন্ধুকে দেখিয়া কহিল, হঠাৎ বাসা বদলাতে হ’ল বলে তোমাকে সংবাদ দিতে পারিনি ; সন্ধান করলে কি ক’রে ? সুরেশ তাহার কোন উত্তর না দিয়া থপ, করিয়া চৌকাঠের উপর বসিয়া পড়িল A演ー>