পাতা:শিক্ষাবিধায়ক প্রস্তাব.pdf/১০৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ふパか শিক্ষাধিয়ক প্রস্তাব । সাধু ব্যবহার এলং সাধুপ্রয়োগকে মুলস্বরূপ করিয়া ৰৈয়াকরণের শব্দশাস্ত্রের নিয়ম সমস্ত অবধারিত করেন, প্রচলম্ভাষার পক্ষে সেই সাধুব্যবহার এবং প্রয়োগ সৰ্ব্বদ পরিবর্তনশীল থাকতে বৈয়াকরণদিগের নিয়ম গুলিও সুতরাং অব্যাপ্তি দোষে দূষিত হুইয়। থাকে । বাঙ্গাল এক্ষণকার প্রচলিত ভাষণ । অতএব ইহার ব্যাকরণ ও যে অসম্পূর্ণ হইবে তাহ অনায়াসেই বোধ হইতে পারে: বিশেষতঃ বাঙ্গাল ভাষার এই প্রথম উন্নতির সময় । এক্ষণে যে ইহার কত দূর্ব পর্যন্ত বৃদ্ধি হইয়া উঠিবে, তাহারও নিশ্চয় নাই । অতএব এ পর্যন্ত বাঙ্গালার ব্যাকরণ ষে সর্ববাদিসম্মত হইয়া উঠে নাই তাহাও কোন প্রকারে তাtশচর্য্যের বিষয় হইতে পাবে ন। অপিতু, কোন ভাষায় ব্যাকরণ শিক্ষার মুখ্যউদ্দেশ্য এই যে, তদার। সেই ভাষায় বাকা রচনার জ্ঞান জন্মে । পরম্ভ প্রচলিত ভাষায় কথোপকথন করিতে পার। সেই ভাষাভাষী ব্যক্তিবর্গের সহিত সৰ্ব্বদা সম্পর্ক রাখিলেই অনায়াসে সিদ্ধ হইয় থাকে। বিশেযত: মাতৃ জাতীয় ভাষায় কথোপকথন করিবার নিমিত্ত ব্যাকরণ শাস্ত্রের উপদেশ অবশ্যক করে না । এই জন্যই বাঙ্গালির ছেলের পক্ষে বঙ্গালার ব্যাকরণ শিক্ষা করা জনসাধারণের বিশেষ ফলেপিধায়ক বলিয়া বোধ হয় না। প্রভূত কোন স্থলে ব্যাকরণের সূত্র সমস্ত এমত নিতান্ত নিম্প্রয়োজনীয় বোধ হয় যে,