পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/১১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শিখগুরু ও শিধজাতি ع فة . হইতে নগর শিখদিগের করায়ত্ত্ব হইল । শোভসিংহ, গুজর -গু লেহনা নগরটা তিনভাগ করিয়া লইলেন । তদবধি লাহোর শিখদিগের শাসনাধীনই রহিয়াছে । আমেদ সাহ শেষবার পাঞ্জাব আক্রমণের সময়ে গুজর সিংহের উপরই লাহোরের শাসনভার অর্পণ করিয়া গিয়াছিলেন । সর্দার রণজিং সাহছুমালের নিকট নামমাত্র লাহোর নগরের শাসনাধিকার পাইয়াছিলেন ; পূৰ্ব্বোক্ত সর্দার তিনজনের বংশধরেরাই লাহোরের শাসনকৰ্ত্ত ছিলেন । লেহুন ও শোভাসিংহের পুত্রের ইন্দ্রিয়পরায়ণ কাপুরুষ ছিল । তাহদের উৎপীড়নে লাহোরের অধিবাসীরা জ্বালাতন হইয়া উঠিয়াছিল । রণজিৎ সাহের নিকট হইতে লাহোর নগরের -শাসনক্ষমতা লাভ করিয়াছেন শুনিয়া নগরের অধিবাসীদের মানন্দের সীমা রহিল না। তাহারা সর্দার রণজিংকে নগর অধিকার করিয়া লইবার নিমিত্ত আহবান করিল। গুজর সিংহের বংশধর সাহেব সিংহ বীরপুরুষ ছিলেন । কিন্তু তিনি এই সময়ে লাহোর নগরে ছিলেন না রণজিং সসৈন্তে নগরদ্ধারে উপনীত হইলেন, নগরবাসীরা তাহাকে আপনাদের উদ্ধারকর্তৃরূপে বরণ করিয়া লইল । অযোগ্য শাসন কর্তৃদ্বয় নগর ছাড়িয়া পলায়ন করিল। বিন সংগ্রামে রণজিৎ লাহোরের প্রভু হইলেন - . - বিংশবর্ষ বয়ঃক্রম কালে রণজিৎ লাহোর অধিকার করিয়া ও রাজা উপাধিতে ভূধিত হইয় পঞ্চনদপ্রদেশে সৰ্ব্বাপেক্ষ ক্ষমতাশালী হইয় উঠিলেন। তাহার সাফল্য শিখদলপতিগণের মনে গভীর আতঙ্কের সঞ্চার করিল । রামঘোরিয়া ও ভাঙ্গীসর্দারের রণজিংকে গোপনে হত্যা করি-বীর নিমিত্ত যড়যন্ত্র করিলেন । ভাসিন নামক স্থানে এক সভার অধিবেশন -সময়ে এই হত্যাকাও অনুষ্ঠিত হইবার কথা ছিল। তীক্ষী রণজিৎ পূর্কেই । কুচক্রীদের ষড়যন্ত্র জানিতে পরিলেন । তিনি সৈন্তৰলে ৰলী হইয়