পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/১৪০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ত্রয়োদশ অধ্যায় ృృఠీ ছিলেন । তিনি হিন্দু রাজপুত তাহার সহোদর রাজা গোলাপ সিংহ ও সুচেত সিংহ দুইজনেই লাহোরদরবারে প্রসিদ্ধি লাভ করিয়া ছিলেন । ধানসিংহ প্রধান মন্ত্রীর কার্য্য করিতেন এবং অতিশয় ক্ষমতাশালী ছিলেন । তিনি এমন সুবিবেচনার সহিত ক্ষমতার পরিচালনা করিতেন যে, সকলে একবাক্যে র্তাহার প্রশংসা করিতেন । কাহারে সহিত বিরোধ উপস্থিত হইলে ধানসিংহ যখন তাহার অন্য তুষ্ট সহোদরকে লইয়া যুদ্ধক্ষেত্রে উপনীত হইতেন তখন কোনো প্রবল শত্ৰুও তাহদের সহিত অঁাটিয়া উঠিতে পারিত না । রণজিৎ তাহার এই বৃদ্ধিমান মন্ত্রীকে সমুচিত শ্রদ্ধা দেখাইতেন এবং রাজা ’ বলিয়া সম্বোধন করিতেন । ধ্যামসিংহের সম্বন্ধে রণজিৎ স্বয়ং বলিয়াছেন —“রাজা প্রিয়দর্শন, উৎকৃষ্ট অশ্বারোহী, অসি, বশী ও বন্দুক চালনায় সিদ্ধহস্ত, তিনি আগন্তুকদিগের সহিত শিষ্ট্রব্যবহার করেন ও প্রার্থীদের দুঃখ দৈন্ত দূর করিবার নিমিত্ত সতত উৎসুক।” এত গুণ থাকা সত্ত্বেও ধ্যানসিংহ পরম অধাৰ্ম্মিক বলিয়া মিমি ত হইয়া থাকেন । রণজিতের মৃত্যুর পরে লাহোররাজপরিবারে যে ভীষণ আত্মদ্রোহ ঘটিয়াছিল ধ্যানসিংহ তাহার মধ্যে লিপ্ত ছিলেন । তাহারই ষড়যন্ত্রে খড়গসিংহ, নাওনিহালসিংহ ও সেরসিংহ নিহত হইয়াছিলেন মনে করিয়া অাজপৰ্য্যস্ত শিখেরা ধ্যানসিংহকে পরমপাষণ্ড বলিয়া ঘৃণা করিয়া থাকে । জমাদার কুশলসিংহ লাহোর দরবারের এক প্রধান ব্যক্তি ছিলেন । তিনি মীরাট সহরের এক বাহ্মণদোকানদারের পুত্র, ১৭ বৎসর বয়সে লাহোর নগরে আসিয়া পাচ টাকা বেতনে সৈন্যদলে প্রবেশ করেন । কিছুকাল পরে রাজভবনের কয়েকজন উচ্চ কৰ্ম্মচারীর সহিত তাহার আলাপ হয়, তাহদের সহায়তায় তিনি মহারাজ রণজিতের শরীর