পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/১৪৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চতুর্দশ অধ্যায় స করিতে হইয়াছে । ১৮১৯ অব্দে ইহারা ইংরাজদূত মেটকাফ সাহেবের মুসলমান সহচরদিগকে আক্রমণ করিয়া রণজিৎকে বিপদগ্রস্ত করিয়া তুলিতেছিল। অসমসাহসিক আকালীর কোনো কোনো সঙ্কটের সময়ে আপনার অগ্রগামী হইয়া শিথদিগকে বিপদ হইতে উদ্ধার করিয়াছে । ইহার কুইবার মহারাজ রণজিতের জীবননাশের চেষ্টা করিয়াছিল । মুসলমানদের ডাকনামাজ শুনিলেই আকাণীরা ক্ষেপিয়া উঠিত। রণজিৎ মুসলমানদিগকে বিন্দুমাত্র ঘৃণা করিতেন না । তাহার শাসনে মুসলমানের নিৰ্ব্বিঘ্নে আপনাদের বিশ্বাসানুমোদিত ক্রিয়াকৰ্ম্ম করিতে পারিত ; আকালীদের ইহা সহ হইত না । এই ধৰ্ম্মান্ধ সম্প্রদায়কে সংযমসূত্রে বঁধিবার মানসে রণজিৎ তিন সহস্ৰ আকালী লইয়া একটি অশ্বারোহী সৈন্যদল গড়িয়া তুলিলেন । কিন্তু ইহাতে কোনো সুফল ফলিয়াছিল বলিয়া মনে হয় না । যে কয়জন য়ুরোপীয় কৰ্ম্মচারী মহারাজ রণজিংকে সৈন্যদল গঠনে সাহায্য করিয়াছিলেন সেনাপতি ভেণ্ট ৱা তাহাদের মধ্যে সৰ্ব্বপ্রধান ! তিনি ইতালীদেশবাসী, নেপোলিয়নের সৈন্যদলে কার্য্য করিয়া প্রসিদ্ধি লাভ করিয়াছিলেন। স্কুরোপখণ্ডের বুদ্ধাবসানে যখন সৈন্তবিভাগে তাহার চাকুরী ছিল না তখন প্রবাসে যে কোনো রাজ্যে সৈনিক বৃত্তি-লাভের জন্ত বাহির হইয় পড়েন। সেনাপতি এলার্ডও ভেন্ট বার স্থায় নেপোলি য়ানের অধীনে বহুযুদ্ধে বীরত্ব প্রকাশ করিয়াছিলেন । র্তাহারা দুজনেই মিশরে ও পারস্তে সৈন্তবিভাগে প্রবেশের চেষ্টা করিয়া ব্যর্থমনোরথ হন। তংপরে হিরাত ও কান্দাহার হইয় তাহারা পঞ্চনদ প্রদেশের রাজধানী লাহোর নগরে উপনীত হইলেন। মহারাজ রণজিৎ এই অজ্ঞাত-কুলশীল বিদেশীদ্বয়কে তাহার সৈন্যদলে নিযুক্ত করিতে দীর্ঘকাল ইতস্তত: করিলেন ; নানাপ্রকার পরীক্ষা করিয়া রণজিৎ র্তাহাদিগের প্রতি