পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/১৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ృధిa শিখগুরু ও শিখজাতি প্রতি তাহার দৃষ্টি পতিত হয় । এই পাৰ্ব্বত্য প্রদেশের দুৰ্দ্ধাস্ত মুসলমানেরাও র্তাহার নিকট অনায়াসে পরাভব স্বীকার করে নাই । ইতিপূৰ্ব্বে ১৮১৪ খৃষ্টাব্দে হুকুম সিংহ মহারাজ রণজিৎ সিংহের আদেশে আটক ও হজার প্রদেশে শিখ-শাসন প্রতিষ্ঠার চেষ্ট পাইয়াছিলেন । তিনি আটক দুর্গ হইতে আফগানদিগকে তাড়াইয়া দিয়াছিলেন । নিষ্ঠুর প্রকৃতি হুকুম সিংহ জনৈক ধনাঢ্য মুসলমানকে ফাসাঁকাষ্ঠে ঝুলাইয়াছিলেন বলিয়া সমগ্র দেশবাদীরা উত্তেজিত হইয় উঠে । রণজিৎ বেগতিক দেখিয়া হুকুমের পরিবর্তে দেওয়ান রামদয়ালকে ঐ প্রদেশের শাসনভার প্রদান করিলেন। ১৮১৯ খৃষ্টাবো ইয়ুসাফজাই’ ও ‘স্বাৎ’ নামক দুইটি মুসলমানসম্প্রদায় বিদ্রোহী হইয়া শিখদের বিরুদ্ধে যুদ্ধার্থ গণ্ডীগড় দুর্গে মিলিত হইলেন। পূৰ্ব্ববৰ্ত্তী শাসনকৰ্ত্তাকে দুই একটি খণ্ডযুদ্ধে পরাভূত করিয়া মুসলমানদিগের আত্মশক্তির প্রতি প্রত্যয় জন্মিয়ছিল। এবারে তাহাদের জনবল শিখদের অপেক্ষ কম ছিল না । অদম্য উৎসাহের সহিত তাহারা শিখদের সহিত যুদ্ধ চালাইতেছিল । একদিন সূর্য্যোদয় হইতে স্থৰ্য্যাস্তপর্যান্ত উভয় পক্ষে যুদ্ধ চলিল । সারংকালে রণ-ক্লাস্ত শিথের পৃষ্ঠভঙ্গ দিল । পলায়নপর শিখ-সৈন্সের শাসনকৰ্ত্তাকে পশ্চাতে রাখিয়া অনেক দূর অগ্রসর হইয় পড়িয়াছিল । অল্প কয়েকজনমাত্র শরীররক্ষকসহ শাসনকর্তা দ্বিতীয়বার মুসলমানগণকর্তৃক আক্রান্ত হইয়া নিহত হইলেন। শিপের নায়কের মৃত্যুতে হতোদ্যম হইয়া লাহোরে ফিরিয়া আসিল । , - অতঃপর সর্দার অমরসিংহ সীমাস্তপ্রদেশের বিদ্রোহদমনার্থ উক্ত প্রদেশের শাসনকৰ্ত্ত নিযুক্ত হইলেন । তিনিও মুসলমানদের হস্তে নিহত হইয়াছিলেন । ১৮২৩ খৃষ্টাৰো পেশবার প্রদেশ মহারাজ রণজিতের অধীন করদ