পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/১৮১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


శ్రీ ఫి শিখগুরু ও শিখজাতি সহ মুলতানে গমন করেন। মূলরাজ প্রকাশুে তাহাদের হস্তে নগরের চাবি প্রদান করিলেন বটে, কিন্তু রাত্রিকালে বিদ্রোহী হইয় গোপনে তাহাদিগকে আক্রমণ করিলেন । ইংরাজকৰ্ম্মচারিদ্বয় নিহত এবং নুতনশাসনকৰ্ত্ত র্তাহার পুত্ৰগণসহ বন্দী হইলেন । লাহোর হইতে আগত সৈন্যগণ বিদ্রোহী মূলরাজের সহিত যোগদান করিল। অল্প কয়েক সহস্র সৈন্য সহায় করিয়া মূলরাজ ; যুদ্ধঘোষণা করিলেন । লেপ্টেনাণ্ট এডওয়ার্ডস নামক জনৈক তরুণবয়স্ক ইংরাজ মুসলমানসৈন্য সংগ্ৰহ করিয়া বিদ্রোহীদিগের সহিত যুদ্ধ করেন। তাহার দুইবার পরাজিত হইয়া নগরকুর্গে আশ্রয় গ্রহণ করিল । ইতিমধ্যে লাহোর দরবার হইতে সের সিংহ বার সহস্র সৈন্তসহ প্রেরিত হইয়া মুলতান নগরে উপনীত হইলেন । লেপ্টেনাণ্ট এডওয়ার্ডস্ সেরসিংহের প্রতি বিশ্বাসস্থাপন করিতে পারেন নাই । তাহার এই সন্দেহ অচিরে সত্যমূলক বলিয়া প্রতিপন্ন হইল । সেরসিংহও পরিশেষে মূলরাজের সহিত যোগদান করিলেন। ১৮৪৯ থষ্টাব্দের ২২এ জানুয়ার ইংরাজের মুলতানদুর্গ অধিকার করিলেন বটে, কিন্তু এই বিরোধকে উপলক্ষ্য করিয়া উক্ত দুর্গজয়ের পূৰ্ব্বে সমগ্র পঞ্চনদপ্রদেশে শিখদের বিদ্রোহবহ্নি আবার জলিয়া উঠিল। ইংরাজদের সহিত সৰ্ব্বপ্রকার সম্বন্ধ ছিন্ন করিয়া আবার পূর্ণস্বাধীনতা লাভের জন্য শিখের ক্ষেপিয়া উঠিল । বিদ্রোহীদের নেতার দলিপসিংহের জননীর সহিত পরামর্শ চালাইতে fছলেন । শিখেরা পেশবার ছাড়িয়া দিবার সর্তে আফগানের আমীর tাস্তমম্মদেরও সহায়তা লাভ করিল। ইংরাজ ও শিখে আবার তুমুল সংগ্রাম বাধিয়া গেল । ১৮৪৯ খ.ষ্টাব্দের ১৩ই জানুয়ারী সেনাপতি লর্ড গফ পনর সহস্র সৈন্ত ও ৬৬টা কামান লইয়া চিনিওয়ানয়ালা জনপদে শিখদিগকে আক্রমণ