পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


. প্রথম অধ্যায় ෆ আসিয়া আশ্রয় লইয়াছিল। ভারতবর্ষীয় জিটিসগণ এত দিনে শক্তিশালী হইয়া উঠিয়াছিল। গজনী মামুদের প্রথম ভারতআক্রমণের বিবরণমধ্যে ইহাদের উল্লেখ রহিয়াছে । - ভারতবর্ষের এক প্রাস্তবাসী এই জাঠ সম্প্রদায়ের সহিত দুই শত বৎসর যুদ্ধের পর মুসলমানেরা ভারতে রাজ্য বিস্তার করিয়াছিল । একদিন যে জাঠ সম্প্রদায় নি তাস্ত নগণ্য ছিল, এখন মুসলমানদিগের ভারত আক্রমণের সঙ্গে সঙ্গে তাহাদিগের নাম প্রচারিত হইতে লাগিল । এতদিন তাহারা খণ্ড-ক্ষুদ্র ছিল, এখন জমাট বাধিয়া একটা দল হইয়া পড়িয়াছে। মামুদের সৈন্যদলকে ইহার ব্যতিবাস্ত করিয়া তুলিয়াছিল। ১৯২৭ খৃষ্টাব্দে মামুদ ইহাদের সহিত স্বয়ং যুদ্ধ করেন । চতুর্দশ শতাব্দীতে সুবিখ্যাত তৈমুরলঙ্গের সহিত ইহাদের একটা ভীষণ যুদ্ধ হইয়াছিল । তৈমুর ইহাদিগের উচ্ছেদসাধনের চেষ্টা করিয়াছিলেন । সম্রাট বাবর তাহার আত্মজীবনীতে লিখিয়াছেন, “আমি যতবার ভারতবর্ষ আক্রমণ করিয়াছি দলে দলে জাঠের আমাকে আক্রমণ করিয়াছে।” তিনি যাহাদিগকে জিঠ আখ্যা দিয়াছেন, তাহারাই পঞ্জাবে জাঠ নামে খ্যাত ছিল । বহু যুদ্ধ বিগ্রহ, অরাজকতা সহ করিয়া অনেক লাঞ্ছনা তাড়না স্বীকার করিয়া এই জাঠ সম্প্রদায় পঞ্জাবকে আপনার দেশ করিয়া লইয়াছিল। কতবার এই সম্প্রদায়কে বাসভূমি ত্যাগ করিয়া দূরবর্তী অরণ্যে পৰ্ব্বতে আশ্রয় লইতে হইয়াছে ; আবার প্রবল শত্রুর চলিয়া গেলে পর তাহাদিগকে নিজ বাসস্থানে ফিরিয়া আসিতে হইয়াছে, তাহার সংখ্যা করা সাধ্যাতীত। যে ভারতীয় আর্য্যের ইহাদিগকে ঘৃণা করিত, ইহাদিগকে সমূলে বিনাশ করিবার চেষ্টা করিয়াছিল, ইহার তাহাদিগের ধৰ্ম্ম, ভাষা, তাহাদিগের জ্ঞান বিজ্ঞান ও সভ্যতার আলোক পাইয়াই