পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/৪০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃতীয় অধ্যায় ఫె গুরু রামদাস >Q" 8-bア> গুরু রামদাস অত্যন্ত বিনয়ী ও ভক্ত ছিলেন । মোগল সম্রাটু মহামতি আকবর লাহোরে অবস্থানকালে, রামদাসের সহিত আলাপ করিয়া মুগ্ধ হইয়াছিলেন । আন্তরিক শ্রদ্ধার নিদর্শনস্বরূপ তিনি রামদাসকে একথও ভূমিদান করিয়াছিলেন । সেই বৃত্তাকার ভূমিখণ্ড ‘রামদাসচক্র’ নামে খ্যাত ছিল । রামদাস সম্রাটের প্রদত্ত এই ভূখণ্ডে অমৃত, সরোবর’ নামক একটি সরোবর খনন এবং সরোবরের মধ্যবৰ্ত্তী দ্বীপাকার ভূমিখণ্ডে একটি মন্দির নিৰ্ম্মাণ করিতে আরম্ভ করেন । এইরূপে পুণ্যভূমি অমৃতসরের ভিত্তি প্রতিষ্ঠিত হুইল । গুরু রামদাসের শিষ্যেরা সেই সরোবরের তীরে বাস করিত। গুরুও গোবিন্দওয়াল হইতে আসিয়া সময়ে সময়ে সেখানে বাস করিতেন। অমৃতসর তথন ‘রামদাসপুর ’ নামে খ্যাত ছিল। গুরু রামদাসের উপর সম্রাট আকবরের গভীর শ্রদ্ধা ছিল । তিনি যখন পাঞ্জাব হইতে দাক্ষিণাত্যে গমন করেন, তখন গোবিন্দওয়ালের নিকট অপেক্ষ করিয়া রামদাসকে ডাকাইয়া আনিয়াছিলেন । তিনি রামদাসকে বিশেষ অনুগ্রহ ও সমুচিত শ্রদ্ধা দেখাইয়া জিজ্ঞাসা করিলেন যে,—“র্তাহার কোনও প্রার্থনা আছে কি না।” গুরু রামদাস বলিয়াছিলেন,--“আমার এই মাত্র বক্তব্য যে, এতকাল সম্রাটের দরবার এখানে ছিল, কৃষকের বহুমূল্য শস্ত বিক্রয় করিয়া লাভবান হইতেছিল, সম্রাটু চলিয়া গেলে শস্তের মূল্য সহস। কমিয়া যাওয়ায় প্রজাদের কষ্ট হইবে । আমার অনুরোধ এই যে,— আপনি তাহাদিগকে বর্তমান সনের রাজস্ব মাপ করুন । * সমাট একর