পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/৪৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃতীয় অধ্যায় ২৩ মোগলসমাটের নিকট র্তাহার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ উপস্থিত করিতে লাগিল । কেহ কেহ বলেন, তিনি সম্রাটু জাহাঙ্গীরের বিদ্রোহী পুত্র খসরুকে আশ্রয়দান করিয়াছিলেন। শিথ গ্রন্থকারের বলেন, লাহোরের রাজস্বসচিব চন্দমাহ ঈর্ষাপরায়ণ হইয় গুরু অর্জনকে অকারণে বিপদগ্ৰস্ত করিবার চেষ্টা করিতেছিলেন। র্তাহারই চক্রান্তে অবশেষে তিনি বন্দী হইয়াছিলেন। লাহোর জেলে ১৬০৬ খৃষ্টাব্দে তাহার মৃত্যু হয়। অৰ্জ্জুনের मृङ्घनश्यक দুই প্রকার জনশ্রুতি শুনা যায় । কেহ কেহ বলেন, অত্যাচার সহ করিতে না পারিয়া তিনি জলমগ্ন হইয়। প্রাণত্যাগ করেন ; অপর কেহ কেহ বলেন, মোগল সম্রাটের নিষ্ঠুর কৰ্ম্মচারীদের পাশবিক অত্যাচারেই তাহার মৃত্যু ঘটে। মৃত্যুর পূৰ্ব্বে তিনি আপনার শিষদিগকে এই শেষ বাক্য বলিয়া পাঠাইয়াছিলেন—“ভগবান দুৰ্ব্বলের বল, র্তাহার জন্ম মৃত্যু নাই, তিনি অবিনশ্বর ৷ ” গুরু অর্জনের মৃত্যুতে সমস্ত শিখ সম্প্রদায় উত্তেজিত হইয়া উঠিল। অসিহস্তে ধৰ্ম্মরক্ষা করিবার কল্পনা এই সময়ে প্রথম তাহাদিগের মনে উদিত হয় । শিখইতিহাসের এই একটি আশ্চর্য্য পরিবর্তনের যুগ । মুসলমানদিগের সহিত ঘাতপ্রতিঘাতে যে শিখের সমরকুশল জাতি হইয়া উঠিবে, তাহার এই প্রথম তীব্র আঘাত পাইল। ধৰ্ম্মপ্রাণ শিখ সম্প্রদায়ের মৃদুমন্দ জীবনস্রোত সহসা বাধাপ্রাপ্ত হইয় প্রবল আকার ধারণ করিতে চলিল। "