পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বিরুদ্ধে সংগ্রামে যতই কৃতকার্য্য হইতে লাগিল ততই আত্মরক্ষার চেষ্টা ঘূচির গিয়া ক্ষমতা বিস্তারের লোলুপতা বাড়ির উঠতে লাগিল। যতদিন বিরুদ্ধপক্ষ প্রবল থাকাতে আত্মরক্ষার চেষ্টাই একান্ত হইয়া উঠে, ততদিন এক-বিপদের তাড়নায় নিজেদের মধ্যে ঐক্যবন্ধন দৃঢ় থাকে। বাহিরের সেই চাপ সরিয়া গেলে এই বিজয়মদমত্ততাকে কিলে ধারণ করিয়া রাখিতে পারে ? আত্মরক্ষাচেষ্টায় যে যুদ্ধশক্তি সঞ্চিত হইয়া উঠে অন্তকে আঘাত করিবার উদ্যম হইতে নিবৃত্ত করিয়া নিজেকে গড়িয়া তুলিবার চেষ্টায় সেই শক্তিকে কে নিযুক্ত করিতে পারে ? যে শক্তি তাহা পারিত আশু-প্রয়োজন সাধনের অতিলোলুপতার গুরুগোবিন্দ তাহাকে থৰ্ব্ব করিয়াছিলেন । গুরুর পরিবর্তে তিনি শিখদিগকে তরবারি দান করিলেম । তিনি যখন চলিয়া গেলেন তখন নানকের প্রচারিত মহাসত্য গ্রন্থসাহেবের মধ্যে আবদ্ধ হইল, তাহা গুরু-পরম্পরায় জীবনপ্রবাহে ধাবিত হইয়া মানবসমাজকে ফলবান করিবার জন্য অপ্রতিহতগতিতে সম্মুখে অগ্রসর হইতে থাকিল না ; এক জায়গায় তাহা অবরুদ্ধ হইয় গেল। - শক্তি তখন দেখিতে দেখিতে লুব্ধ এবং অসংযত হইয়া উঠিল । তখন দেবতার তিরোধানে অপদেবতার প্রাচুর্ভাব হইল, কাড়াকড়ি ও प्रशाँझलेि छेकांभ झझेग्नां पुंठिंश । এই উচ্ছ স্থল আত্মঘাতসাধনের মধ্যে রণজিৎ সিংহের অভু্যদয় হইল। তিনি কিছুদিনের জন্ত বিচ্ছিন্ন শিখদিগকে এক করিয়াছিলেন, কিন্তু সে কেবলমাত্র বলের স্বারা । তিনি সকলের চেয়ে বলশালী বলিয়া সকলকে দমন করিয়াছিলেন । . বলের দ্বারা ষে লোক এক করে সে অন্তকে দুৰ্ব্বল করিয়াই এক করে—শুধু তাই নয়, ঐক্যের ষে চিরন্তন মূলতত্ত্ব প্রেম তাহাকেই