পাতা:শিখগুরু ও শিখজাতি.pdf/৯২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


4. শিখগুরু ও শিখজাতি নগরে দেখা করেন, এবং কাবুলিমল নামক একজন শিখকে লাহোরের শাসনকৰ্ত্ত নিযুক্ত করেন। তথন সহসা কান্দাহারে বিদ্রোহ উপস্থিত হওয়ায় তিনি স্বদেশে প্রত্যাগমন করিলেন । ধৰ্ম্মপ্রাণ শিখদের প্রাণে অনাবশুক বেদনাপ্রদান ও স্বীয় জঘন্য প্রতিহিংসাবৃত্তি চরিতার্থ করিবার নিমিত্ত স্বদেশগমনের পূৰ্ব্বে তিনি অমৃতসরের পবিত্র মন্দির ধ্বংস ও সরোবর গোরক্তে রঞ্জিত করেন । আশ্চর্য্যের বিষয় এই যে, এত বড় পরাভবেও শিখেরা হতোদ্যম হইল না, তাহদের শক্তি দিন দিন বাড়িতে লাগিল। ভাবী গৌরবলাভের আশায় তাহাদের মন উৎসাহে উৎফুল্ল থাকিত। তাহাদের দলপতির শক্রনিপীড়ন ও স্বাধীনতা প্রতিষ্ঠার নিমিত্ত বদ্ধপরিকর হইলেন। আমেদ সাহের স্বদেশে প্রত্যাবর্তনের অল্পদিন পরেই শিখের কুমুরের পাঠান উপনিবেশ আক্রমণ করিল ; উক্তনগর লুষ্ঠিত ও বিধ্বস্ত হইল । তথা হইতে শিখেরা মালেড় কোটলায় গমন করিয়া তাহাদের পূৰ্ব্বতন শত্রু হিস্কুন থাকে আক্রমণ করিল। হিজুন পরাজিত ও নিহত হইলেন । অতঃপর বিজয়ী শিথসৈন্ত সিরহিন্দ অধিকার করিতে চলিল । শাসনকর্তা জেহন খাঁ যুদ্ধার্থ সন্মুখীন হইলেন । উক্ত অসহায় শাসনকৰ্ত্ত প্রায় চল্লিশ সহস্ৰ শিখ সৈন্তের বিরুদ্ধে দণ্ডায়মান হইয়াছিলেন । ১৭৬৩ খৃষ্টান্ধে যুদ্ধক্ষেত্রে তিনি নিহত হইলেন । শতক্ৰ হইতে যমুনাপর্যন্ত ভূভাগ, বিজয়ি শিথসৈন্তদিগের শাসনাধীন হইল। এইরূপ কিংবদন্তী আছে যে, যুদ্ধান্তে বিজয়ী শিখগণ আপন আপন অধিকারঘোষণার নিমিত্ত অশ্বারোহণে গ্রামে গ্রামে উকীষ, গাত্রবস্ত্র, কোমরবন্ধ, তরবারী, প্রভৃতি ছড়াইয়াছিল। এইবারে শিখেরা সিরহিন্দ নগর সম্পূর্ণরূপ ধ্বংস করিয়াছিল । গোবিন্দসিংহের পুত্রদ্ধয় যে প্রাচীরে জীয়ন্ত সমাহিক্ত হইয়াছিলেন, বিজয়ী শিখেরা সেই প্রাচীর ভাঙ্গিয়া ফেলিল ।