পাতা:শেষ প্রশ্ন.djvu/২২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


این فتح ইনফ্লুয়েঞ্জা এদেশে সম্পূর্ণ নুতন ব্যাধি নহে, ডেঙ্গু বলিয়া মানুষে কতকটা অবজ্ঞা ও উপহাসের চক্ষেই দেখিত । দিন উইতিন দুঃখ দেওয়া ভিন্ন ইহার আর কোন গভীর উদ্দেশু নাই ইহাই ছিল লোকের ধারণা। কিন্তু সহসা এমন দুর্শিবার মহামারী রূপেও সে যে দেখা দিতে পারে এ কেহ কল্পনাও করিতনা । সুতরাং এবার অকস্মাৎ ইহার অপরিমেয় শক্তির সুনিশ্চিত কঠোরতায় প্রথমটা লোকে হতবুদ্ধি হইল, তাহার পরেই যে যেখানে পারিল পলাইতে সুরু করিল। আত্মীয়-পরে বিশেষ প্রভেদ রহিলনা, রোগে শুকুৰা কুরিবে কি, মৃত্যুকালে মুখে জল দিবার লোকও অনেকের ভাগ্যে জুটিলনা । সহর ও পল্লী সৰ্ব্বত্র একই দশা, আগ্রার সুদৃষ্টেও ইহার অন্যথা ঘটিলনা,— এই সমৃদ্ধ, জনবহুল প্রাচীন নগরীর মূৰ্ত্তি যেন দিন কয়েকের মধ্যেই একেবারে বদলাইয়া গেল। ইস্কুল-কলেজ বন্ধ, হ টে-বাজারে দোকানের কবাট অবরুদ্ধ, নদী-তীর শূন্য-প্রায়, শুধু হিন্দু ও মুসলমান শব-বNছকের শঙ্কাকুল ত্রস্ত পদক্ষেপ ব্যতিরেকে রাজপথ নিঃশব্দ জনহীন । যে-কোন দিকে চাহিলেই মনে হয় শুধু কেবল মানুষ-জনই নয়, গাছপালা; বাড়ী ঘর-স্বারের চেহারা পর্য্যন্ত যেন ভয়ে বিবর্ণ হইয়া উঠিয়াছে। এমনি যখন সহরের অবস্থা: তখন চিন্তা, দুঃখ ও শোকের দাহনে অনেকের সঙ্গেই অনেকের একটা • রফা হইয়া গেছে ।" চেষ্টা করিয়া, আলোচনা করিয়া, মধ্যস্থ মানিয়া নয়,—যেন আপনিই হইয়াছে । আজও পাহারা বাঁচিয়া আছে, এখনও ধরাপৃষ্ঠ হইতে বিলুপ্ত হয় নাই তাহারা সকলেই যেন সকলের পরমাত্মীয়