প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শেষ প্রশ্ন.djvu/২৯৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষ প্রশ্ন ' ९>8 নীলিমার দুই চক্ষু সহসা ব্যথায় ভরিয়া আসিল, কহিল, সে বেচারা ভদ্র-সমাজের বাইরে, লোকালয়ের বাইরে পড়ে আছে, তাকে আপনাদের টানাটানি করা কেন ? { আশুবাবু ব্যস্ত হইয়া উঠিলেন, না না, টানাটানি নয়, নীলিমা, এ শুধু একটা উদাহরণ দেওয়া । ! নীলিমা কহিল, ওই তো টানাটানি । এইমাত্র বল্ছিলেন তার সকল কথা বোঝাও যায়না, মানাও চলেনা। চলেনা কিছুই, চলে কি শুধু উদাহরণ দেওয়া ? র্তাহার কথার মধ্যে দোষের কি আছে, আশুবাবু ভাবিয়া পাইলেননা । ক্ষুন্নকণ্ঠে বলিলেন, যে জন্যেই হোক, আজ তোমার মন বোধ হয় খুব খারাপ হয়ে আছে। এ সময়ে আলোচনা করা ভালো নয় । নীলিমা এ কথা কানে তুলিলনা, বলিল, সেদিন আপনি ওঁদের বিবাহ-বিচ্ছেদের মত দিয়েছিলেন, এবং আজ অসঙ্কোচে-কমলের দৃষ্টান্ত দিলেন । ওঁর অবস্থায় কমল কি করতো, তা’ সেই জানে, কিন্তু তার দৃষ্টান্ত সত্যি কোরে অনুসরণ করতে গেলে আজ ওঁকে কুলী-মজুরের জামা সেলাই ক’রে আহার সংগ্রহ করতে হোতো,—তাও হয়ত সব দিন জুটুতোনা। কমল আর. যাই করুক, যে-স্বামীকে সে লাঞ্ছনা দিয়ে ঘৃণায় ত্যাগ করেছে, তারই দেওয়া অন্নের গ্রাস মুখে তুলে, তারই দেওয়া বস্ত্রে লজ্জা নিবারণ কোরে বঁাচ তে চাইতনা । নিজেকে এতখানি ছোট করার আগে সে আত্মহত্যা ক’রে মরতো। আগুবাবু জবাব দিবেন কি, অভিভূত হইয়া পড়িলেন, এবং বেলা ঠিক যেন বজাহতের ন্যায় নিশ্চল হইয়া রহিল। নীলিমার হাসিতামাসা করিয়াই দিন কাটে, সকলের মুখ চাহিয়া থাকাই যেন তাহার