পাতা:শেষ প্রশ্ন.djvu/৩৩৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শেষ প্রশ্ন రిరిg কখনো তার নিজের চোখে ধরা পড়ে, সেদিন যেন না সংশোধনের পথ অবরুদ্ধ থাকে। এম্‌নি কোরেই মানুষে আপনাকে শোধ রাতে’ শোধ রাতে আজ মানুষ হতে পেরেছে। ভুলকে তো ভয় নেই আগুবাবু, যতক্ষণ তার অন্যদিকের পথ খোলা থাকে। সেই পথটা চোখের সম্মুখে বন্ধ ঠেকৃচে বলেই আজ আপনার আশঙ্কার সীমা নেই। মনোরমা কন্যা না হইয়া আর কেহ হইলে এই সোজা কথাটা তিনি সহজেই বুঝিতেন, কিন্তু একমাত্র সন্তানের নিদারুণ ভবিষ্যতের নিঃসন্দিগ্ধ দুৰ্গতি কমলের সকল আবেদন বিফল করিয়া দিল, শুধু অসংলগ্ন মিনতির স্বরে কহিলেন, না কমল, এ বিবাহ বন্ধ করা ছাড়া আর কোন রাস্তাই আমার চোখে পড়েনা । কোন উপায়ই কি তুমি বলে দিতে পারে না ? আমি ? ইঙ্গিতটা কমল এতক্ষণে বুঝিল । এবং, ইহাই স্পষ্ট করিতে গিয়া তাহার স্নিগ্ধ কণ্ঠ মুহূৰ্ত্তের জন্য গম্ভীর হইয়া উঠিল, কিন্তু সে ওই মুহূৰ্ত্তের জন্যই। নীলিমার প্রতি চোখ পড়িতেই আত্মসম্বরণ করিয়া কহিল, না, এ ব্যাপারে কোন সাহায্যই আপনাকে আমি করতে পারবোনা। উত্তরাধিকারে বঞ্চিত করার ভয় দেখালে সে ভয় পাবে কি না জানিনে, যদি পায় তখন এই কথাই বোলুব যে খাইয়ে-পরিয়ে, ইস্কুল-কলেজে বই মুখস্ত করিয়ে মেয়েকে বড়ই করেছেন, কিন্তু মানুষ করতে পারেননি। সেই অভাব পূর্ণ করার মুযোগটুকু তার যদি আজ দৈবাৎ এসে পড়ে থাকে, আমি হস্তারক হতে যাবো কিসের জন্তে ? কথাটা আণ্ডবাবুর ভালো লাগিলন, কহিলেন, তুমি কি তাহলে বলতে চাও বাধা দেওয়া আমার কর্তব্য নয় ? ($ কমল কহিল, অন্তত:, ভয় দেখিয়ে নয় এইটুকুই বলতে পারি। আমি আপনার মেয়ে হলে বাধা হয়ত পেতাম, কিন্তু এ জীবনে আর