প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শেষ প্রশ্ন.djvu/৫০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অকস্মাৎ শিবনাথ ও তাহার স্ত্রী সম্মুখে আসিয়া পড়িল। শিবনাথ না দেখার ভান করিয়া আর-একদিকে সরিয়া যাইবার উপক্রম করিতেই তাহার স্ত্রী তাহার দৃষ্টি আকর্ষণ করিয়া খুসি হইয়া বলিয়া উঠিল, আশুবাবু ও তাঁর মেয়ে এসেছেন যে!

 আশুবাবু উচ্চ কন্ঠে আহ্বান করিয়া কহিলেন, আপ্নারা কখ এলেন শিবনাথ বাবু? এদিকে আসুন।

 সস্ত্রীক শিবনাথ কাছে আসিয়া দাঁড়াইল। আশুবাবু তাহার পরিচয় দিয়া কহিলেন, ইনি শিবনাথের স্ত্রী। আপনার নামটি কিন্তু এখনো জানিনে।

 মেয়েটি কহিল, আমার নাম কমল। কিন্তু আমাকে আপনি বলবেননা আশুবাবু।

 আশুবাবু কহিলেন, বলা উচিতও নয়! কমল, এঁরা আমার বন্ধু, তোমার স্বামীর পরিচিত। বোসো।

 কমল আজিতকে ইঙ্গিতে দেখাইয়া বলিল কিন্তু এঁর পরিচয় ত দিলেন না।

 আশুবাবু বললেন, ক্রমশঃ দেব বই কি। উনি আমার,- উনি আমার পরমাত্মীয়। নাম অজিতকুমার রায়। দিনকয়েক হল বিলেত থেকে ফিরে আমাদের দেখতে এসেছেন। কমল, তুমি কি আজ এই প্রথম তাজমহল দেখলে?

 মেয়েটি মাথা নাড়িয়া বলিল, হাঁ।

 আশুবাবু বলিলেন, তা'হলে তুমি ভাগ্যবতী। কিন্তু আজিত তোমার চেয়েও ভাগ্যবান, কেননা, এই পরম বিস্ময়ের জিনিসটি সে এখনো দেখেনি, এইবার দেখবে। কিন্তু আলো কমে আসচে, আর ত দেরী করলে চলবেনা অজিত।