প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:শ্রীকান্ত (তৃতীয় পর্ব).djvu/১৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


@8伊 भत्र६क्लमाकी রাজলক্ষ্মী আবার নীরব হইয়া রছিল। সাধু কহিলেন, উনি বোধ করি ঘুমিয়ে পড়েচেন, কিন্তু এইবার একটু তার গাড়িতে গিয়ে বসি গে। আচ্ছা দিদি, কখনো দু-চারদিন যদি তোমাদের অতিৰি হই, উনি কি রাগ করবেন? - রাজলক্ষ্মী সহস্যে কছিল, উনিটি কে ? তোমার দাদা ? সাধুজীও মৃদু হাসিয়া বলিলেন, আচ্ছা, না হয় তাই। DDDDDD DBDS DD DDD DB BBD D D DBB BB DD BBB BD D BBBB গঙ্গামাটিতে, তারপর তার বিচার হবে। সাধুজী কি বলিলেন শুনিতে পাইলাম না, বোধ করি কিছুই বলিলেন না। ক্ষণেক পরে আমার গাড়িতে উঠিয়া আসিয়া ধীরে ধীরে ডাকিলেন, দাদা, আপনি কি জেগে আছেন ? আমি জাগিয়াই ছিলাম, কিন্তু সাড়া দিলাম না। তখন আমারই পার্থে সাধুজী একটুখানি স্থান করিয়া লইয়া তাহার ছেড়া কম্বলখানি গায়ে দিয়া শুইয়া পড়িলেন। একবার ইচ্ছা হইল একটুখানি সরিয়া গিয়া বেচারীকে আর একটু জায়গা দিই, কিন্তু পাছে নড়াচড়া করিতে গেলে তাহার সন্দেহ জন্মে আমি জাগিয়া আছি, কিংবা আমার ঘুম ভাঙ্গিয়া গেছে, এবং এই গভীর নিশীথে আর একদফা দেশের সুগভীর সমস্যা আলোড়িত হইয়া উঠে, এই ভয়ে করুণা-প্রকাশের চেষ্টা মাত্র করিলাম না। গঙ্গামাটিতে গাড়ি কখন প্রবেশ করিল আমি জানিতে পারি নাই, জানিলাম যখন গাড়ি আসিয়া থামিল আমাদের নূতন বাটীর দ্বারপ্রাস্তে। তখন সকাল হইয়াছে। গোটা-চারেক গো-যানের বিবিধ এবং বিচিত্র কোলাহলে চতুষ্পার্থে ভিড় বড় কম জমে নাই। রতনের কল্যাণে পূর্বাহ্নেই শুনিয়াছিলাম এটা নাকি মূখ্যতঃ ছোটজাতির গ্রাম। দেখিলাম, রাগ করিয়া কথাটা সে নিতান্ত মিথ্যা কহে নাই। এই শীতের ভোরেও পঞ্চাশ-যাটটি নানা বয়সের ছেলে-মেয়ে উলঙ্গ এবং অর্ধ-উলঙ্গ অবস্থায় বোধ করি এইমাত্র ঘুম ভাঙ্গিয়া তামাশা দেখিতে জমা হইয়াছে। পশ্চাতে বাপ-মায়ের দলও যথাযোগ্যভাবে উকির্বুকি মারিতেছে। ইহাদের আকৃতি ও পোশাক-পরিচ্ছদে ইহাদের কৌলিন্য সম্বন্ধে আর যাহাব মনে যাহাঁই থাক, রতনের মনের মধ্যে বোধ হয় সংশয়ের বাষ্পও রহিল না। তাহার ঘুমভাঙ্গা মুখ এক নিমিষেই বিরক্তি ও ক্রোধে ভীমরুলের চাকের মতন ভীষণ হইয়া উঠিল। কত্রীকে দর্শন করিবার অতি-ব্যগ্রতায় গোটা-কয়েক ছেলেমেয়ে কিঞ্চিৎ আত্মবিস্কৃত হইয়া ঘেঁবিয়া আসিয়াছিল, রতন এমন একটা বিকট ভঙ্গি করিয়া তাহদের তাড়া করিল যে, গাড়োয়ান দু’জন সুমুখে না থাকিলে সেইখানেই এখটা রক্তারক্তি কাণ্ড ঘটিত। রতন কিছুমাত্র লজ্জা অনুভব করিল না। আমার প্রতি চাহিয়া কহিল, যত সব ছোটজেতের মরণ! দেখচেন বাবু, ছোটলোক ব্যাটাদের আম্পর্ধা—যেন রথ-দোল দেখতে এসেচে! আমাদের মত সব ভদ্রলোক কি এখানে থাকতে পারে বাবু! এখুনি সব ছোঁয়াজুরি করে একাকার করে দেবে। "ছোয়াছুয়ি' কথাটা সর্বাগ্রে কনে গেল। রাজলক্ষ্মীর। তাহার মুখখানি যেন অপ্রসর হইয়া উঠিল। সাধুজী নিজের বাঙ্গ নামাইতে ব্যস্ত ছিলেন। কাজটা সমাধা করিয়া তিনি একটা লোটা বাহির DDBBBB BB BBB BB DBBBB BB BBB BB BBBD DDB BB BBB ধরিয়া কহিলেন, ওরে ছেলে, যা ত ভাই, এখানে কোথা ভাল পুকুর-টুকুর আছে-একটি জল নিয়ে আয়—চা খেতে হবে। বলিয়া পত্রিটা তাহার হাতে ধরাইয়া দিয়া, সম্মুখের একজন প্রৌঢ়-গোছের লোককে উদ্দেশ করিয়া কহিলেন, মোড়লের পেী, কাছাকাছি কার গরু আছে দেখিয়ে দাও ত দাঙ্গা, BDBB DB BB BBBS BBB BB BB BDDSBB DD D DBB BBS DDD DD একবার আমার ও একবার তাহার দিলির মুখের প্রতি দৃষ্টি নিক্ষেপ করিলেন। মিলি কিন্তু এ-উৎসাহে কিছুমাত্র যোগ দিলেন না। অপ্রসন্নমুখে এখটু হাসিয়া কছিলেন, রতন, যা ত বাৰা, ঘটিটা মেজে একটু জল নিয়ে জায় । 3. রতনের মেজাজের খবরটা ইতিপূর্বে দিয়াছি। তার উপর এই শীতের সকালে যখন কে একটা অচেনা সাধুর জন্য কোথাকার একটা নিরুদেশ জলাশয় উদ্দেশ কররি জল জানিবার ভার পড়িল, BDD DB BBBBBBBB BB BB BS BBBBBD DDD BB BBB BB BB BBB